২ কার্তিক, ১৪২৪, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭, ভোর ৫:৩৭
চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, জাতীয়, প্রধান খবর, লাইফ স্টাইল, শিক্ষাঙ্গন, সারাদেশ চাঁদপুরের শাহরাস্তি ও ফরিদগঞ্জে দু’টি রাস্তা সংস্কার করলেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা

চাঁদপুরের শাহরাস্তি ও ফরিদগঞ্জে দু’টি রাস্তা সংস্কার করলেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা

Post by: সম্পাদক on সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৭ | ৭:২৭ অপরাহ্ণ in চট্টগ্রাম,চাঁদপুর,জাতীয়,প্রধান খবর,লাইফ স্টাইল,শিক্ষাঙ্গন,সারাদেশ

শাহ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম, চাঁদপুর: এবার ভাঙ্গা রাস্তা সংস্কারে এগিয়ে এলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা। চাঁদপুরের শাহরাস্তি ও ফরিদগঞ্জে দু’টি রাস্তার সংস্কার করেছেন তারা। তাদের এই মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে এলাকার মানুষ। জেলার শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের প্রধান সড়কটি শাহরাস্তি উপজেলা সদর থেকে দক্ষিণাঞ্চলে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে কয়েক সহস্রাধিক মানুষ ও যানবাহন চলাচল করে থাকে। সড়কটি এতই বেহাল হয়ে পড়েছিল যে, যানবাহন চলাচলতো দূরের কথা, পায়ে হেঁটে চলাও দুষ্কর হয়ে পড়েছিল। গত রমজান মাসে শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কিছু ইট বালি দিয়ে গর্ত ভরাট করেন। ঈদুল আযহার সময় অতি বৃষ্টির ফলে সড়কটি আগের চেয়েও আরো খারাপ হয়ে যায়। এক পর্যায়ে এ সড়কের বিভিন্ন স্থানে সকল ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। অবশেষে স্থানীয় শিক্ষক রুহুল কুদ্দুছ লিটন ফেসবুকে এক স্ট্যাটাস দিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কারে সহযাত্রী হবার আহ্বান জানালেন। তার এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসলেন মজির মাস্টার, অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির লিটন, অধ্যাপক জাহেদ হোসেন, সাবেক ফুটবলার সহীদুল ইসলাম, মো: নজরুল ইসলাম (মেসি), এনাম মাস্টার, প্রবাসী বাবলু, সাইফুল দেওয়ান, জাহাঙ্গীর মাস্টার, পলাশ বেপারী, ছাত্র তাজিন, যুবনেতা হান্নানশাহ, রাশেদ ইমন, বাবলুসহ এলাকার প্রায় ২০/২৫ জন যুবক। গত ১৫ সেপ্টেম্বর এরা নিজেরাই নিজস্ব অর্থায়নে ও স্বেচ্ছাশ্রমে ইট বালি বহন করে আয়নাতলী বাজার থেকে বসুপাড়া মোড় পর্যন্ত প্রায় সোয়া ১ কিলোমিটার অচল সড়ককে সংস্কার করে সচল সড়কে পরিণত করলেন। উদ্যোক্তাদের প্রধান, শিক্ষক নেতা রুহুল কুদ্দুস লিটন জানান, এক্ষেত্রে তারা মাত্র দুইজন শ্রমিককে সাথে নিয়ে সকাল থেকেই সন্ধ্যা পর্যন্ত নিজেরাই স্বেচ্ছশ্রম দিয়েছেন। কিছু কিছু ছোট সমস্যার জন্য জনপ্রতিনিধিদের দিকে তাকিয়ে না থেকে নিজেরাই মিলে যে সমাধান করা সম্ভব এ সড়কের ছোট বড় বিশাল গর্ত ভরাট ও সংস্কার তারই বড় প্রমাণ হিসেবে দেখে স্থানীয় জনগণ ও ভুক্তভোগীরা এ কর্মকান্ডকে সাধুবাদ জানিয়েছে। তারা হয়ে পড়েছেন অনেকের জন্য অনুকরণীয়।
অন্যদিকে দুরাবস্থার শিকার ফরিদগঞ্জ উপজেলার ফরিদগঞ্জ-চান্দ্রা সড়কের কিছু অংশ মেরামতে স্বেচ্ছাশ্রম দিলেন কেরোয়া হোসনেয়ারা বেগম আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।


জানা গেছে, পৌর এলাকার অবস্থিত কেরোয়া হোসনেয়ারা বেগম আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে দিয়ে যাওয়া ফরিদগঞ্জ-চান্দ্রা সড়কটির মেরামত কাজ চলমান থাকলেও গত ৬ মাসেও তা শেষ হয়নি। মেরামত করলেও বরং চলতি বর্ষার কারণে স্থানে স্থানে বড় ধরনের গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে ওই বিদ্যালয়ের দুই পাশের এক কিলোমিটার সড়কের অবস্থা শোচনীয়। এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন বিপুল সংখ্যক যানবাহনের পাশাপাশি কেরোয়া সরকারি আদর্শ শিশু নিকেতন ও কেরোয়া হোসনেয়ারা বেগম আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ শতাধিক শিক্ষার্থী আসা যাওয়া করে। চলাফেরা করার কষ্ট ছাড়াও কর্দমাক্ত রাস্তার কারণে চলাচলকারী গাড়ির কারণে অনেক শিক্ষার্থীকে কাদা মাখা স্কুল ড্রেস পরেই বিদ্যালয়ে আসতে হচ্ছে। ফলে বাধ্য হয়ে বিদ্যালয়েরর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা নিজেরাই বিদ্যালয় এলাকার এই সড়কটির কিছু অংশ মেরামত করার উদ্যোগ নেয়। মঙ্গলবার সকালে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রাজীব মজুমদারের নেতৃত্বে শিক্ষক ও স্কাউট দলের শিক্ষার্থীরা রাস্তার গর্ত ভরাটে কাজ শুরু করে। স্থানীয় ব্যবসায়ী কামাল মিয়াজী তাদের এ কাজে সহায়তার হাত বাড়ান। তারা স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে গর্তগুলো ভরাট করে দেয়ায় কিছুটা হলেও কাদা মাটি গায়ে মাখা থেকে রক্ষা পাবে শিক্ষার্থীরা।
এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীপক কুমার রাউত জানান, শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগের কথা ভেবে স্থানীয় ব্যবসায়ী কামাল মিয়াজীর সহায়তায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা সড়কটি কিছ্ ুঅংশ মেরামতে স্বেচ্ছাশ্রম দিয়েছে।

হটনিউজ24বিডি.কম/ সারাদেশ,চট্টগ্রাম,সারাদেশ,চট্টগ্রাম,চাঁদপুর,জাতীয়,প্রধান খবর,লাইফ স্টাইল,শিক্ষাঙ্গন,সারাদেশ/২০-০৯-২০১৭/সম্পাদক

হটনিউজ24বিডি.কম কর্তৃক সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত. হটনিউজ24বিডি.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, অডিও কনটেন্ট হটনিউজ24বিডি.কম এর পূর্বানুমতি ব্যতীত ব্যবহার করা কপিরাইট আইন অনুযায়ী দণ্ডনীয় অপরাধ।

Comments

পাঠক আপনার মতামত দিন ।পাঠকের মন্তব্যের জন্য সম্পাদক দায়ি নন ।


comments

Comment