খুলনা যশোর রাজনীতি

যশোরে ৬টিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিজয়ী

images আব্দুল ওয়াহাব মুকুল, যশোর প্রতিনিধি: যশোরের ৬টি পৌরসভার মধ্যে ৬টিতেই আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থীরা বিজয় হয়েছেন। বিজয়ীরা হলেন, যশোর জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, চৌগাছায় নুর উদ্দিন আল মামুন হিমেল, বাঘারপাড়ায় কামরুজ্জামান বাচ্চু, কেশবপুরে রফিকুল ইসলাম মোড়ল, মনিরামপুরে অধ্যক্ষ কাজী মাহমুদুল হাসান এবং অভয়নগরের সুশান্ত দাশ শান্ত।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, যশোর পৌরসভায় আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু  ৩৭ হাজার ৭শ ৭ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির মারুফুল ইসলাম পেয়েছেন ১০ হাজার ৭শত ৭৬ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী এসএম কামরুজ্জামান চুন্নু পেয়েছেন ২হাজার ৭৯ ভোট।
যশোরের চৌগাছায় পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নূর উদ্দীন আল মামুন হিমেল বে-সরকারিভাবে নির্বাচীত হয়েছেন প্রাপ্ত ভোট ৪২৪৬। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রাথী এস এম সাইফুর রহমান বাবুল পেয়েছেন ৩৬৩৭। এছাড়া বিএনপির প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীক বর্তমান মেয়র সেলিম রেজা আওলিয়ার প্রাপ্ত ভোট ১৯৩৫, জামায়াত সমর্থিত জগ প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রাথী কামাল আহমেদেও প্রাপ্ত ভোট ১৪৮৯। উপজেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এই ফলাফল ঘোষনা করা হয়। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে যারা জয়লাভ করেছেন ১ নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর আনিছুর রহমান, ২ নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর সাহিদুল ইসলাম, ৩নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর হাসানুর রহমান, ৪নং ওয়ার্ডে সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক,  ৫নং ওয়ার্ডে গোলাম মোস্তফা, ৬নং ওয়ার্ডে আতিয়ার রহমান, ৭নং ওয়ার্ডে আব্দুর রহমান, ৮নং ওয়ার্ডে মোঃ শাহীনুর রহমান, ৯ নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর আনিছুর রহমান। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ১ নং সাবিনা খাতুন, ২ নং জোসনা খাতুন ও ৩ নম্বরে জোহুরা খাতুন এগিয়ে আছে।
বাঘারপাড়া  পৌরসভা নির্বানে নতুন মেয়র হলেন কামরুজ্জামান বাচ্চু। তিনি নৌকা প্রতিকে ভোট পেয়েছেন ২৫৪৩, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী স্বতত্র প্রাথী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দীকী জগ প্রতিক পেয়েছেন ১৫৯৬,তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী ধানের শীষ বর্তমান মেয়র আব্দুল হাই মনা পেয়েছেন ১৩৭২, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী সাবেক মেয়র খলিলুর রহমান বিশ্বাস নারিকেল গাছ প্রতিক পেয়েছেন ৯১। বাঘারপাড়া পৌরসভায় মাত্র ৬৩৩৯ টি ভোট এর মধ্যে মহিলা ভোটার হলো ৩২৬৮ এবং পুরুষ ভোটার হলো ৩০১৭টি। এছাড়া কাউন্সিলরা নির্বাচিতরা হলেন, ১নং ওয়ার্ডে ফয়সাল আহম্মেদ, ২নং ওয়ার্ড শাহিন আহম্মেদ,৩নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিলর খবিরুদ্দীন, ৪নং ওয়ার্ডে শরিফ উদ্দীন ,৫নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিলর ওলিয়ার রহমান, ৬নং ওয়ার্ড সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুলফিক্কার আলী জুলাই, ৭নং ওয়ার্ডে টেইলার্স মুস্তক আহম্মেদ, ৮নং ওয়ার্ডে সাবেক কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম শহিদ, ৯নং ওয়ার্ডে মাষ্টার মুস্তাক আহম্মেদ, সংরক্ষিত আসনে ১/২/৩ নং ওয়ার্ডে নাছরিন পারভিন,৪/৫/৬ নং ওয়ার্ডে হাওয়া খাতুন৭/৮/৯ নং ওয়ার্ডে তাছলিমা খাতুন।
কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মোড়ল বিশাল ভোটের ব্যবধানে  বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান মেয়র আব্দুস সামাদ বিশ্বাসকে হারিয়ে বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।  নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্র্থী রফিকুল ইসলাম মোড়ল  নৌকা প্রতীকে ৯হাজার ২৪৯ভোট ও  প্রতিদ্বন্ধী  বিএনপির প্রার্থী আব্দুস সামাদ বিশ্বাস ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৬০২ ভোট পেয়েছেন।
কাউন্সিলর ৯ পদে বেসরকারি ফলাফলে নির্বাচিত হয়েছেন ১ নং ওয়ার্ডে শেখ আতিয়ার রহমান (টেবিল ল্যাম্প), ২ নং ওয়ার্ডে মশিয়ার রহমান (পানির বোতল),৩ নং ওয়ার্ডে জামাল উদ্দিন(উটপাখি), ৪ নং ওয়ার্ডে আফজাল হোসেন বাবু (পানির বোতল), ৫ নং ওয়ার্ডে শহদিুজ্জামান শহিদ (উট পাখি),৬ নং ওয়ার্ডে জাকির হোসেন (পাঞ্জাবী),৭ নং ওয়ার্ডে আব্দুস সাত্তার খান(উটপাখি), ৮ নং ওয়ার্ডে মফিজুর রহমান( উটপাখি) ও ৯ নং ওয়ার্ডে শেখ এবাদত সিদ্দিকী বিপুল(উট পাখি), সংরক্ষিত ওয়ার্ড (১,২,৩)কাউন্সিলর পদে মেহেরুন নেসা মেরী (কাঁচি), আছিয়া খাতুন শিল্পী (আঙ্গুর) (৪,৫,৬) ও মনিরা খাতুন (কাঁচি) (৭,৮,৯) বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
মনিরামপুরে পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী অধ্যক্ষ কাজী মাহমুদ হাসান বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৮হাজার ১শ ১৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ধন্ধী বিএনপির ধানের শীর্ষ প্রতিকে অ্যাড. শহীদ ইকবাল পেয়েছেন ৭ হাজার ২শ ৭৩ ভোট।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,  নানা উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা থাকলেও মণিরামপুরে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পৌর নির্বাচনের ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে। বুধবার সকাল ৮ টা থেকে ভোট গ্রহন শুরু হয়ে বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত। ভোট গ্রহণের সময়,তার পূর্বে ও পরে পৌর এলাকার কোথাও কোন সহিংসতা বা অপ্রীতিকর কোন ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। শুরুতে ভোটারদের মাঝে কিছুটা উদ্বেগ কাজ করলেও তীব্রশীত ও ঘন কুয়াশা উপেক্ষা করে সকাল ৮ টায় ভোট কেন্দ্রে ছুটে এসে পৌর এলাকার সচেতন ভোটারদেরকে উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিতে দেখা গেছে।
এবারের পৌরসভা নির্বাচনে মণিরামপুরে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী উপজেলা আ’লীগের সভাপতি প্রবীন রাজনীতিবীদ অধ্যক্ষ কাজী মাহমুদুল হাসানের বিপুল ভোটে জয় হয়েছে। তিনি তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি পরপর দুই বারের নির্বাচিত মেয়র থানা বিএনপির সভাপতি এ্যাড.শহীদ ইকবালকে ৮ শ’ ৪৩ ভোটের ব্যাবধানে হারিয়ে প্রথম বারের মত পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতিকে ৮ হাজার ১ শ’ ১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী থানা বিএনপির সভাপতি দুই বারের নির্বাচিত পৌর মেয়র শহীদ ইকবাল ধানের শীষ প্রতিকে পেয়েছেন ৭ হাজার ২ শ’৭৩ ভোট। আর মেয়র প্রার্থী জিএম মজিদ নাগরিক কমিটির ব্যানারে নারকেল গাছ প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন মাত্র ২ শ’৫০ ভোট। এদিকে পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডে ৯ জন সাধারন কাউন্সিলর ও ৩ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ভোট যুদ্ধে জয় পেয়ে বিজয়ের মালা পরলেন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১ নং হাকোবা ওয়ার্ডে মোহম্মদ আজিম উটপাখি প্রতিক নিয়ে ১ হাজার ৬৮ ভোট পেয়ে বিসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী গৌতম চক্রবর্তি পেয়েছেন ৪ শ’৪১ ভোট। ২নং ওয়ার্ডে গোপাল চন্দ্র মল্লিক ১ হাজার ৭৬ ভোট পেয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী মফিজুর রহমান পেয়েছেন ৬ শ’৭১ ভোট। ৩নং ওয়ার্ডে গৌর কুমার ঘোষ ৬ শ’৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আব্দুল গফফার পেয়েছেন ২শ’৯৩ ভোট। ৪নং ওয়ার্ডে আব্দুর রহমান ৮ শ’৪৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আদম আলী পেয়েছেন ৬ শ’৪৮ ভোট। ৫নং ওয়ার্ডে মফিজুর রহমান ৬ শ’৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আসাদুজ্জামান পেয়েছেন ৫ শ’৬২ ভোট। ৬নং ওয়ার্ডে জামশেদ আলী ৬ শ’৯০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আব্দুল মজিদ গাজী পেয়েছেন ৫ শ’৩৭ ভোট। ৭নং ওয়ার্ডে কামরুজ্জামান ১ হাজার ২ শ’৪৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৪ শ’১১ ভোট । ৮নং ওয়ার্ডে বাবুল রহমান ৮ শ’৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।  তার নিকটতম প্রার্থী আব্দুস সাত্তার পেয়েছেন ৪ শ’৮৬ ভোট এবং ৯ নং ওয়ার্ডে বসু মোল্যা ১ হাজার ১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী হাবিবুর রহমান পেয়েছেন ৭ শ’২৩ ভোট। এদিকে ১নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত আসনে মহিলা কাউন্সিলর পারভীন আক্তার ২ হাজার ৬শ’৮৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী অনিমা মিত্র পেয়েছেন ২ হাজার ২ শ’৫৮ ভোট । ২নং ওয়ার্ডে শঙ্করী রানী বিশ্বাস ১ হাজার ৯ শ’৯০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী জাহিদা বেগম পেয়েছেন ১ হাজার ৬ শ’ ৪৭ ভোট। ৩নং ওয়ার্ডে মণিরামপুরের প্রথম মহিলা সাংবাদিক গীতা রানী কুন্ডু ২ হাজার ৩ শ’৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং তার নিকটতম প্রার্থী জাহানারা বেগম পেয়েছেন ২ হাজার ১ শ’ ৮৮ ভোট।
অভয়নগরে আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী সুশান্ত দাস শান্ত  ১৮ হাজার ৯শ ৫৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির রবিউল হোসেন পেয়েছেন ১৫ হাজার ২শ ৬৮ ভোট।