অপরাধ জাতীয় ঢাকা সারাদেশ

রাজাকার কমান্ডার হাসান আলীকে ফাঁসি নয়তো ফায়ারিং স্কোয়াড

Hasan_ali1433831088 নিজস্ব প্রতিবেদক,হটনিউজ২৪বিডি.কম : মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় কিশোরগঞ্জের রাজাকার কমান্ডার  পলাতক  সৈয়দ মো. হাসান আলীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২টায় ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।

ট্রাইব্যুনাল রায়ে বলেন, হাসান আলীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে অথবা সরকার চাইলে সরাসরি গুলি করে (ফায়ারিং স্কোয়াডে) তার মৃত্যু কার্যকর করতে পারবে।

রাষ্ট্রপক্ষের আনীত ৬টি অভিযোগের মধ্যে ৩ ও ৪ নম্বর অভিযোগে হাসান আলীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। ২, ৫ ও ৬ নম্বর অভিযোগে তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। ১ নম্বর অভিযোগ ট্রাইব্যুনালে প্রমাণিত হয়নি।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু, হায়দার আলী, তুরিন আফরোজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। হাসান আলীর পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী আব্দুস শুকুর খান উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ২০ এপ্রিল উভয়পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখা হয়।

গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর হাসান আলীর অনুপস্থিতিতে মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরুর নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে তার পক্ষে কোনো আইনজীবী না থাকায় আব্দুস শুকুর খানকে রাষ্ট্রীয়ভাবে আসামিপক্ষের আইনজীবী নিয়োগ দেওয়া হয়।

গত বছরের ২৪ আগস্ট হাসান আলীর বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) আমলে নিয়ে পলাতক এ আসামিকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল।

পলাতক হাসান আলীর বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুট, আটক ও নির্যাতনের ৬টি অভিযোগ আনা হয়। এতে ২৪ জনকে হত্যা, ১২ জনকে অপহরণ ও আটক এবং ১২৫টি ঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ রয়েছে।

হাসান আলীর বিরুদ্ধে গত বছরের ৩ এপ্রিল গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল। আদালতের আদেশ সত্ত্বেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এখনো তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি।