জাতীয়

নিজ বুদ্ধিতে কাজ করার মতো ইসি দরকার’

sumsul20140603120106_2319অনলাইন রিপোর্ট : নিজ বুদ্ধিতে কাজ করার মতো নির্বাচন কমিশন হলে অবশ্যই অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব বলে মনে করেন সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার এটিএম শামসুল হুদা।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিস্থ টিআইবি কার্যালয়ে সংগঠনটির গবেষণা প্রতিবেদন ‘ঢাকা উত্তর, ঢাক দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন ২০১৫: প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণ’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি।

এটিএম শামসুল হুদা বলেন, ‘গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য দলীয় বা তত্ত্বাবধায়ক সরকার কোনো বিষয় নয়। নির্বাচন কমিশনের মতো স্বাধীন জায়গায় শক্ত, নিরপেক্ষ, সুযোগ্য ও মেরুদণ্ডবান ব্যক্তি দরকার। নিজ বুদ্ধিতে কাজ করার মতো কমিশন হলে অবশ্যই অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব।’

নির্বাচনের নিরপেক্ষতা নিয়ে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন হলো ভোটের মাধ্যমে নির্বাচন করার প্রক্রিয়া। ভোট কেন্দ্রে সব প্রার্থী পোলিং এজেন্ট না থাকলে বা এক দলের থাকলে ভোট হয় না। ভোটে অনিয়ম দেখার জন্যই সব দলের পোলিং এজেন্টস রাখা হয়। এই নির্বাচনে সেটি হয়নি।’

সদ্য সমাপ্ত ৩ সিটি নির্বাচন সম্পর্কে মূল্যায়ন করে শামসুল হুদা বলেন, ‘প্রত্যেক নির্বাচনেই দেখা যায় কিছু আইন থাকে। তবে সব প্রার্থীরাই এই আইন ভাঙেন। কমিশন সাময়িক কিছু নোটিশ দিলেও ক্ষমতাসীনদের ব্যাপারে একেবারে নিরব ভূমিকা পালন করেন। একাধিক প্রার্থী নিজে ও দলীয়ভাবে অনিয়মে জড়িয়ে পড়লেও কোনো ব্যবস্থা নেন না কমিশন।’

২০০৮ সালে গণতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচনের প্রক্রিয়া তৈরি হয়েছিল জানিয়ে সাবেক এই সিইসি বলেন, ‘ইলেকট্রনিক্স ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে স্বচ্ছ ভোটদানের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এতে জাল ভোটের কোনো সুযোগ নেই। সিটি নির্বাচনে ফের জাল ভোটের প্রচলন করে পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাওয়া হয়েছে। জাতি হিসেবে আমরা যে গণতান্ত্রিক পথে হাঁটছিলাম তা আজ থেমে গেছে। এর দায়ভায় বর্তমান নির্বাচন কমিশনকেই নিতে হবে।’