জাতীয়

কুড়িগ্রামে ঐতিহাসিক পাকিস্তানি হানাদার মুক্তদিবস পালিত

ডাঃ জি এম ক্যাপ্টেন, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ যুদ্ধাপরাধিদের বিচারের রায় কার্যকরের দাবীর মধ্য দিয়ে কুড়িগ্রামে যথাযোগ্য মর্যাদায় ঐতিহাসিক পাকিস্তানি হানাদার মুক্তদিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট কুড়িগ্রামের উদ্যোগে একটি বিজয় শোভাযাত্রা বের হয়। শহীদ মিনার চত্বর থেকে মুক্তিযোদ্ধা জনতার অংশ গ্রহণে বিজয় শোভাযাত্রা বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে। বিজয় শোভা যাত্রায় নেতৃত্ব দেন কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক এ বি এম আজাদ। পরে স্বাধীনতার বিজয় স্তম্ভে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের পক্ষথেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পরে সেখানেই সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আহবায়ক শ্যামল ভৌমিক এর সভাপতিত্বে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক আলোচনা ও স্মৃতি চারন করনে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মন্ডল, প্রবিণ আইন জীবি এ্যাডভোকেট এনামুল হক চৌধুরী চাঁদ, প্রবিণ আওয়ামীলীগ নেতা এস এম মনির হোসেন, বীরমুক্তিযোদ্ধা ও বি এল এফ মুজিব বাহীনি সাব সেক্টর কমান্ডার আখতারুজ্জামান মন্ডল, হারুন অর রশিদ লাল, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুড়িগ্রাম জেলা ইউনিট কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু, ডিপুটি কমান্ডার আমিনুল ইসলাম, মহিলা পরিষদের সভানেত্রী নন্দিতা চক্রবর্তী, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান কাজিউল ইসলাম, এ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন, কুড়িগ্রাম খবর সম্পাদক ছানালাল বকসী, বাসদ নেতা মোনাব্বর হোসেন মিন্টু, সাংবাদিক সফি খান, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি জ্যোতি আহমদ, সাধারণ সম্পাদক দুলাল বোস, সা¤প্রতিক সভাপতি শাহানুর রহমান, জাতীয় রবিন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদের সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান, সাধারণ সম্পাদক সুব্রতা রায় প্রমূখ। বক্তরা সকল যুদ্ধাপরাধিদের বিচার সহ বিচারের রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি জানান।

এছাড়াও সন্ধ্যা ৬টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে কুড়িগ্রাম কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে ১১দিন ব্যাপী বিজয় উৎসব শুরু হয়েছে।