খুলনা জাতীয় রাজনীতি সাতক্ষীরা

যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে জামাত এখন সৃষ্টিকর্তাকে বাদ দিয়ে মার্কিনীদের দারস্থ হয়েছে : বাদশা

 হটনিউজ ডেস্ক:“জামাত-শিবির কথায় কথায় বলে তারা একমাত্র সৃষ্টিকর্তার কাছে নতজানু হবে। অথচ তারা সেকথা বলেই যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূতের কাছে ধরণা ধরেছে। মার্কিনী কর্তার কাছে তারা ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীদের প্রাণভিক্ষা চেয়েছে। মুখে ধর্মের কথা বললেও জামাত-বিএনপি সাম্রাজ্যবাদের গোলামী করছে। ওয়ার্কার্স পার্টি স্পষ্টভাবে মনে করে মৌলবাদ আর সাম্রাজ্যবাদ ভ্রাতৃসমতুল্য। তাদের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। উভয়ই গণমানুষের দুশমন। এই দুই শক্তির বিরুদ্ধে ওয়ার্কার্স পার্টি প্রাণান্তর সংগ্রাম চালিয়ে যাবে।” সাতক্ষীরায় ওয়ার্কার্স পার্টির কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি এ কথা বলেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমীর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ কর্মীসভায় সভাপতিত্ব করেন পার্টির জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি। ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, আওয়ামী লীগের সাথে ওয়ার্কার্স পার্টি জোট করে ১৪দল সরকার গঠন করেছে। কিন্তু অন্যায় দুর্নীতির সাথে কোনো আপোস নেই। আগামী দিনে ওয়ার্কার্স পার্টি ‘খনিজ সম্পদ রপ্তানি নিষিদ্ধকরণ বিল’ উত্থাপন করবে। একই সাথে কৃষি আদালত বিল এবং খাদ্য নিরাপত্তা বিলসহ জনগুরুত্বপূর্ণ বিল উত্থাপন করবে। বাদশা বলেন, আমরা রাজনীতিতে আওয়ামী লীগের লেজুড়বৃত্তি করি নি। বরং সাম্প্রদায়িকতা-জঙ্গিবাদবিরোধী লড়াইয়ে আমরা বাংলাদেশের রাজনীতিতে নেতৃত্ব দিয়েছি। অনেকেই ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কিন্তু ঐ নির্বাচন না হলে বাংলাদেশকে রক্ষা করা যেত না। যে বিভীষিকাময় পরিস্থিতির মধ্যে বাংলাদেশকে টেনে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, তা থেকে উত্তরণ করা যেত না। তাই ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলেন যারা, তাদের রাজনৈতিক অবস্থান নিয়েই সন্দেহ আছে। কর্মীসভায় আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সভাপতি ও শাহবাগ আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক বাপ্পাদিত্য বসু, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক সাবীর হোসেন, এ্যাডভোকেট ফাহিমুল হক কিসলু, উপাধ্যক্ষ ময়নুল হাসান প্রমুখ। কর্মীসভা পরিচালনা করেন পার্টির জেলা সাধারণ সম্পাদক মহিবুল্লাহ মোড়ল।