খুলনা জাতীয় নড়াইল যশোর সারাদেশ

নড়াইলে জুলেখার লাশ উত্তোলন

 নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলের কালিয়া উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের রুকু শেখের মেয়ে জুলেখার (১৪) লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। জুলেখা । সোমবার (১২ মে) দুপুরে কবর থেকে জুলেখার লাশ তোলা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাসমিন ফারহানা, কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মতিয়ার রহমান, জুলেখার বাবা রুকু শেখ ও মা হাজেরা বেগমসহ এলাকার বিভিন্ন পেশার মানুষ। জুলেখার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি জুলেখার রহস্যজনক মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ১ মার্চ কালিয়া থানায় অপমৃত মামলা হয়।
জুলেখার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, নড়াইলের কালিয়া উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের নাসির শেখের ছেলে মুকুল শেখ (২২) একই গ্রামের রুকু শেখের মেয়ে শাহাবাগ ইউনাটেড একাডেমির নবম শ্রেণির ছাত্রী জুলেখাকে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে প্রায়ই উত্যক্ত করত। এক পর্যায়ে মুকুল গত ১৮ ফেব্রুয়ারি কাঞ্চনপুর থেকে জুলেখাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। এরপর ২৮ ফেব্রুয়ারি মুকুল জুলেখাকে নিয়ে কাঞ্চনপুর গ্রামে ফিরে আসে এবং কালাম শেখের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। মুকুল ও তার লোকজন কালাম শেখের বাড়ি থেকে জুলেখাকে নিয়ে যেতে তার (জুলেখা) মা-বাবাকে চাপ দেয়। এ ব্যাপারে জুলেখার বাবা-মা আপত্তি জানালে তাদেরকে গালমন্দ করা হয়। এক পর্যায়ে মুকুল ও তার লোকজন জুলেখাকে বেধকড় মারপিঠ করে। ওইদিনই (২৮ ফেব্রুয়ারি) জুলেখা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। ঘটনার পরদিন কালিয়া থানার এসআই নজরুল, বাবরা-হাচলা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন লিকু ও এক সাংবাদিকসহ স্থানীয়রা শালিশে অংশ নেন। পরে ময়নাতদন্ত ছাড়াই জুলেখাকে দাফন এবং জুলেখার দরিদ্র বাবা-মা ও ভাইকে মুখ না খোলার জন্য নানা ধরণের হুমকি দেয়া হয়। এ খবর বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশের পর নড়াইলের এসপি মনির হোসেন জুলেখার মৃত্যুরহস্য তদন্তের জন্য গোয়েন্দা পুলিশকে নির্দেশ দেন।