অপরাধ চট্টগ্রাম চাঁদপুর জাতীয়

একটি ফুল ছেড়ার অপরাধে প্রাণ গেলো চাঁদপুরের স্কুল ছাত্র শান্তর

 নিজস্ব বার্তা পরিবেশক, চাঁদপুর: চাঁদপুরে ফুল বাগানের একটি ফুল ছেড়ার অপরাধে প্রাণ দিতে হলো অবুজ শিশু শান্ত মোল্লাকে (৭)। ১২ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে শনিবার সকালে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শান্ত মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে । শান্ত চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের সাহেব বাজার এলাকার আবদুস শুক্কুর মোল্লার ছোট ছেলে। সে স্থানীয় ৭১নং চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র। শান্তর মা শিমু বেগম জানান, গত ১ এপ্রিল সকালে বাড়ি থেকে স্কুলে যায় শান্ত। স্কুল মাঠের ফুল বাগান থেকে একটি ফুল ছিঁড়ে সে।  ফুল ছিঁড়তে দেখে পাশের বাড়ির শাহ আলম গাজী শান্তকে ধরে শারিরক নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে শান্তকে উপরে উঠিয়ে সজোরে মাটিতে ফেলে। পায়ে প্রচন্ড ব্যাথা পেয়েছে বললে মাঠের পাশে পুকুরে নামিয়ে সাঁতার কাটতে বলে আলম। কিন্তু শান্ত সাঁতার দিতে পারছিল না। শান্তকে পুকুরে দেখে তার বড় ভাই সুজন মোল্লা শান্তকে ডাক দেয়। সুজনের ডাক শুনে আলম ঘটনাস্থল থেকে সড়ে যায়।শিমু বেগম আরো জানান, সেখান থেকে শান্তকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায় শান্তর ডান পা ভেঙ্গে গেছে। তার দীর্ঘ ১২দিন হাসপাতালের বেডে যন্ত্রণায় কাতরায় শান্ত। শনিবার সকালে শান্ত মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।জানা গেছে ওই বিদ্যালয়ের পাশের বাড়ির আবদুল মোতালেবের ছেলে শাহ-আলম।
চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল কাইয়ুম জানান, আলম গাজী, নজরুল গাজী ও সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির প্রধানসহ ৩জনের নাম উল্লেখসহ একটি অভিযোগ পেয়েছি। আমরা বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে ইতোমধ্যে তদন্তকাজ শুরু করেছি।