রাজনীতি

জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে আমার সম্পৃক্ততা নিয়ে কথা বলা দুঃখজনক: মিজানুর রহমান

ঢাকা, ২২ মার্চ (হটনিউজ২৪বিডি.কম) : মৌলবাদী জামায়াত-শিবির চক্রের সঙ্গে আমার এতটুকু সম্পৃক্ততা নিয়ে কথা বলাটা দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে গত শুক্রবার বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে-পরে সংঘটিত হামলা থেকে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের রক্ষা করতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে। এসব হামলার ঘটনায় করা মামলায় হাজার হাজার মানুষকে আসামি করে ব্যবসা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মিজানুর রহমান।

উক্ত অনুষ্ঠানে তিনি আরো বলেন, ‘৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে অক্টোবর ও নভেম্বরে যে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে, মানুষের নিরাপত্তা যেভাবে বিঘ্নিত হয়েছে—তার নিরাপত্তা বিধান করতে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে।’

তোফায়েল ও নাসিমকে উদ্দেশ করে মিজানুর রহমান বলেন, ‘সরকারের কাছের ও প্রভাবশালী দুই মন্ত্রীর কাছে বলতে চাই, আমরা মানবাধিকার কমিশন থেকে যখন ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজখবর নিয়েছি, তখন দেখেছি সংখ্যালঘু বাড়িতে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগের ঘটনায় হাতে গোনা কয়েকজনকে এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে। আর অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে কয়েক শ বা কয়েক হাজার।’

তিনি বলেন, ‘এটা দোষীদের খুঁজে বের করার জন্য নয়, ব্যবসা করার জন্য এভাবে মামলা করা হয়েছে। মানুষের নিরাপত্তা নিয়ে এ ধরনের ব্যবসা বন্ধ করতে হবে।’

মিজানুর রহমান বক্তব্য দিয়ে চলে যাওয়ার পর অনুষ্ঠানে উপস্থিত বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম তাঁর সমালোচনা করে বক্তব্য দেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘হামলার সঙ্গে কারা জড়িত, এটা সবার কাছে স্পষ্ট। এখানে একজন বক্তব্য দিয়ে চলে গেলেন। কিন্তু যারা সাম্প্রদায়িক হামলার সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে কোনো কথা বললেন না। কেন বললেন না? কারণ, এঁরা হলেন সেই শক্তির ধারক। এঁরা তাদের খরচ জোগান। এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে শুধু মাঠ গরম করা যায়।’

প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ মিজানুর রহমানের সমালোচনা করে বলেন, ‘এখানে একজন মন্ত্রীদের উদ্দেশে বক্তব্য দিয়ে গেছেন। কিন্তু সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জড়িতদের নামটি পর্যন্ত উল্লেখ করলেন না। আমাদের বুদ্ধিজীবীদের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতের বুদ্ধিজীবীদের পার্থক্য রয়েছে। তাঁরা স্পষ্ট করে কথা বলেন না। যেটা প্রকারান্তরে বিএনপি-জামায়াতের পক্ষেই যায়।’

এরই প্রেক্ষিতে মিজানুর রহমান নিজ বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘তাঁরা আমার বক্তব্য যথাযথভাবে অনুধাবন করতে পেরেছেন বলে মনে হয় না। আমাকে যেভাবে একটি দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে, তাতে ব্যক্তিগতভাবে আমি দুঃখ পেয়েছি। মৌলবাদী জামায়াত-শিবির চক্রের সঙ্গে আমার এতটুকু সম্পৃক্ততা নিয়ে কথা বলাটা দুঃখজনক। আমার সম্পর্কে এসব ঢালাও মন্তব্য করা ঠিক হয়নি।’

সূত্র: প্রথম আলো