অপরাধ পটুয়াখালী বরিশাল

ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন

 নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ০৭ মার্চ:  দ্বিতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী সুস্মিতা ও তার মা চুমকি মন্ডলকে ভারতে পাচারের প্রতিবাদে এবং বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার দাবিতে শুক্রবার বেলা ১১ টায় কলাপাড়া পৌর শহরের ব্যবসায়ীরা মানব বন্ধন করেছে। প্রায় ঘন্টাব্যাপী মানব বন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন এমবি কলেজ উপাধ্যক্ষ শহীদুল আলম, ব্যবসায়ী আবুল বাশার মৃধা, আব্দুল বারেক হাওলাদার, রাসেল মোল্লা, আশরাফুল আলম মোতালেব, মোহাম্মদ সোহেল প্রমুখ। বক্তারা অবিলম্বে সুস্মিতা ও তার মাকে উদ্ধারের জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান। কলেজ রোড এলাকার জনতা মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। গৃহবধুর স্বামী দুলাল মন্ডল জানান, তার স্ত্রী চুমকি মন্ডল ও মেয়ে সুস্মিতাকে চিকিৎসার কথা বলে গোসাইখ্যাত অমৃত নামের এক ভন্ড (তান্ত্রিক) সাধু তার কয়েক সহযোগী নিয়ে ১৬ ফেব্রুয়ারি ভারতে পাচার করে দেয়। এঘটনার পর থেকে তিনি দিশাহারা হয়ে পড়েন। পাগলের মতো হন্য হয়ে স্ত্রী ও একমাত্র কন্যা সন্তানকে ফিরে পেতে ঘুরছেন প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে। ইতোমধ্যে বরিশালের বাকেগঞ্জ থেকে ১৩ ফেব্রুয়ারি ভন্ড সাধুর সহযোগী স্বপনকে (৩৫) আটক করে সেখানকার পুলিশে সোপর্দ করেছেন। বাকেরগঞ্জ থানায় এঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। বর্তমানে দুলালের পরিবারের লোকজন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। আদৌ স্ত্রী-সন্তান কবে ফিরে পাবেন এনিয়ে দুলাল উৎকন্ঠায় পড়েছেন। একই দাবিতে ২৬ ফেব্রুয়ারি ব্রাইট স্টার প্রি-ক্যাডেট স্কুলের শত শত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা কলাপাড়া পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। কলাপাড়া পৌর শহরের বাসিন্দা দুলালের স্ত্রী চুমকি মন্ডল অসুস্থ হয়ে পড়ায় জনৈক দালালের মাধ্যমে ওই ভন্ড অমৃত সাধুকে চিকিৎসার কাজে লাগান। দুলাল জানায়, শ্বশুরবাড়ির এলাকার এক ব্যক্তি স্বপনের কথামতো স্ত্রী-সন্তানকে শ্বশুর নির্মল হাওলাদারের বাড়ি বাকেরগঞ্জ পাঠিয়ে দেয়। সাধুও সেখানে চিকিৎসার নামে অবস্থান করতে থাকে। সেখান থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি চুমকি ও তার কন্যা সন্তানকে নিয়ে উধাও হয়। আটককৃত স্বপন পাচার এ চক্রের মূল হোতা বলে দুলালের দাবি।