জাতীয় পটুয়াখালী বরিশাল রাজনীতি

কলাপাড়ায় হাজারো মানুষের মানববন্ধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ০২ ফেব্রুয়ারি : সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলহাজ মাহবুবুর রহমান এমপিকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র, মিথ্যা অপপ্রচার এবং সাগরপাড়ের জনপদ কলাপাড়া-রাঙ্গাবালীকে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব শুন্য করার চক্রান্তের প্রতিবাদে রবিবার দুপুরে কলাপাড়া পৌর শহরে হাজার হাজার মানুষ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে। কলাপাড়া পৌর শহরের মনোহরি পট্টি থেকে থানা সড়ক পর্যন্ত দীর্ঘ মানববন্ধনে রাস্তার দু’দিকে হাজারো নারী-পুরুষ অংশ গ্রহণ করে। কলাপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কলাপাড়া থানা কমান্ড, ছাত্রলীগ পৌর শাখা, শহর শাখা, ইসমাইল তালুকদার টেকনিক্যাল বিএম কৃষি প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এসোসিয়েশন, কলাপাড়া ব্যবসায়ী সমিতি, মানবাধিকার সংস্থা, ঢাকাস্থ বিভিন্ন ইউনিটির পক্ষ থেকে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান সুজন মোল্লা। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল আলম টিটো। অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মান্নান খান, মুক্তিযোদ্ধা থানা কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার হাবিবুল্লাহ
রাণা, ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির, অধ্যাপক আব্দুস সালাম হাওলাদার, ছাত্রলীগ সেক্রেটারী নাসির উদ্দিন সোহাগ, ছাত্রলীগ নেতা সৌরভ শিকদার, হিমেল আল মাসুম, খালিদ হাসানাত খালিদ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, যেখানে গত সংসদ নির্বাচনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মাহবুবুর রহমান এমপির দাখিলকৃত হলফ নামায় সু-স্পষ্টভাবে জমির পরিমাণ ২৮ একর ৬৫ শতাংশ লেখা রয়েছে। কিন্তু একটি দশমিকের কিছুটা অস্পষ্টতাকে কেন্দ্র  করে ২৮৬৫ একর লিখে প্রচার করা হচ্ছে। যা আদৌ সমিচীন নয়। বক্তারা এও দাবি করেন, যেখানে হলফনামার অপর পৃষ্ঠায় ২৮ একর ৬৫ শতাংশ জমির মধ্যে কৃষি জমি ২০ একর বলা হয়েছে। এছাড়া বাকি আট একর ৬৫ শতাংশের অবস্থান এবং তার উপরের কি কি স্থাপনা রয়েছে তাও বিস্তারিতভাবে উল্লেখ রয়েছে। তারপরও সম্পুর্ণভাবে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে একের পর এক অপপ্রচার করা হচ্ছে। বক্তরা বলেন, মাহবুবুর রহমান প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার নির্দেশনায় কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী উপজেলা যেসব উন্নয়ন করা হয়েছে তা বিগত এক শ’ বছরে এখানে করা হয় নি। তৃতীয় পায়রা সমুদ্র বন্দর স্থাপন, কুয়াকাটাকে পৌর শহরে উন্নীত, কলাপাড়া-কুয়াকাটা মহাসড়কের তিন নদীতে তিনটি ব্রিজের নির্মাণ কাজ দু’তৃতীয়াংশ শেষের পথে। রাঙ্গাবালীকে উপজেলায় উন্নীত। অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মাইলের পর মাইল রাস্তা পাকাকরণ। শের-ই-
বাংলা নৌ-ঘাটি স্থাপন প্রক্রিয়া সম্পন্ন। কুয়াকাটাগামী বিকল্প সড়কের বালিয়াতলীতে সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতুর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন।  কলাপাড়া শহরে বহুতল মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স এর ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। এমনসব উন্নয়ন দেখে বরিশাল বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে সমৃদ্ধ এ এলাকাকে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব শুন্য করতে বানোয়াট, সীমাহীন অপপ্রচার শুরু করা হয়েছে। এমনকি চলমান উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতেই এমন অপ-প্রচার বলে মনে করছেন তারা। বক্তারা প্রশ্ন ছুড়ে বলেন বিগত জামায়াত জোট সরকার তিনটি নদীতে একটি বাঁশ পোতার ক্ষমতা দেখাতে পারেন নি। সেখানে তিনটি ব্রিজ নির্মাণ করা হচ্ছে। এসব দেখে রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বের পরিচয় দিতে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক জোট এমন অপপ্রচারে নেমেছে। ফেইজ বুকে ভুয়া আইডি খুলে ব্যাপকভাবে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।