সকল মেনু

বিএনএমের নোঙ্গর প্রতীকে আপত্তি জাতীয় পার্টির

দ্বাদশ ভোটের আগে নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন পাওয়া রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন (বিএনএম) নোঙ্গর প্রতীক নিয়ে আপত্তি তুলছে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি (জাপা)৷

জাতীয় পার্টির দাবি নোঙ্গর ও লাঙ্গল উচ্চারণে অন্তমিল রয়েছে। পাশাপাশি দুটি প্রতীকের সাদৃশ্য আছে। ফলে নতুন নিবন্ধিত দল বিএনএমের নোঙ্গর প্রতীকের পরিবর্তনের দাবি জানায় জাপা।

রবিবার (১৩ আগস্ট) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য রেজাউল ইসলামের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের সাথে সাক্ষাৎ করে এই আপত্তি জানান। জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু স্বাক্ষরিত এক চিঠিটি সিইসি বরাবর লেখা হয়।

সম্প্রতি নতুন রাজনৈতিক দল হিসেবে বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি (বিএসপি) ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনকে (বিএনএম) নিবন্ধন চূড়ান্ত করেছে কাজী হাবিবুল আউয়াল নেতৃত্বাধীন কমিশন। বিএনএম এর দলীয় প্রতীক নোঙর ও বিএসপির প্রতীক একতারা।

মুজিবুল হক স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, নির্বাচন কমিশন থেকে কয়েকটি রাজনৈতিক দলকে নিবন্ধন দেয়া হয়েছে। যে সব দল নিবন্ধন লাভ করেছে- ওই দলসমূহকে আমরা স্বাগত জানাই। কিন্তু নিবন্ধন লাভ করা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন (বিএনএম) কে যে ‘নোঙ্গর’ প্রতীক দেয়া হয়েছে- তাতে আমাদের আপত্তি আছে। কারণ- এক. ‘নোঙ্গর’ ও ‘লাঙ্গল’ উচ্চারণের মধ্যে কিছুটা আন্তমিল রয়েছে। দুই. এই দুটি প্রতীকের ছবিতে কিছুটা সাদৃশ্যও আছে। নির্বাচনী ব্যালটে এই দুটি প্রতীকের ছবি থাকলে ভোটারগণ বিভ্রান্ত হতে পারেন। কারণ, সকলের দৃষ্টি শক্তি সমান থাকেনা।

চিঠিতে আরো বলা হয়, এক সময়ে একটি রাজনৈতিক দলকে ‘জাহাজ’ প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছিলো। ব্যালটে নৌকার ছবির সাথে ‘জাহাজের’ ছবির কিছুটা সাদৃশ্য দেখায়- আপত্তি উত্থাপিত হলে ওই প্রতীকটি বাদ দেয়া হয়েছে।

নতুন নিবন্ধিত বিএনএম-কে বরাদ্দকৃত ‘নোঙ্গর’ প্রতীক পরিবর্তন করে অন্যকোনো পরিচিত প্রতীক বরাদ্দ করা দাবি জানিয়ে দলটি জানায়,নির্বাচনী প্রতীকের গেজেট সংশোধন করে প্রতীকের তালিকা থেকে ‘নোঙ্গর’ প্রতীক বাদ দেয়ার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, কর্তৃপক্ষ এর দায়ভার নেবে না।

top