গোপালগঞ্জ জাতীয় ঢাকা শিক্ষাঙ্গন

পিঠা উৎসবে মুখর গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়

গৌরাঙ্গ লাল দাস,গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) উৎসব মুখর পিঠা উৎসব হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের জন্মদিন উপলক্ষে বাংলা বিভাগ  এ পিঠা উৎসবের আয়োজন করে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, ৪টি স্টলে প্রায় ৭০ প্রকারের পিঠা পবিবেশন করা হয়। চিতুই পিঠা, ভাপা পিঠা, কুলি পিঠা, নকশি পিঠা, সুজির পিঠা, পাকান পিঠা, ডিমের পুডিং, মোয়া পিঠা, পাটিসাপটা, ছোলার বর্ফি, ঝাল চন্দ্রকোনা, চন্দনকুলি, গোলাপ পিঠা, লবঙ্গ পিঠা, তক্তি পিঠা, দুধ খেঁজুর, পাঁপড়ি পিঠা, নারকেলের চিড়া, নারকেলের বর্ফি, রসপান পিঠাসহ হরেক রকমের রসালো পিঠা ছিলে বশেমুরবিপ্রবি ক্যাম্পাসের পিঠা উৎসবে।
মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন পিঠা উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন। চলে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত।
এ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ হাসিনা চত্বর থেকে একটি বর্নাঢ্য শোভাযাত্র বের করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়  প্রদক্ষিণ করে পুনরায় শেখ হাসিনা চত্বরে এসে শোভাযাত্রা টি  শেষ হয়।
ওই চত্বরে চারটি স্টলে মনোমুগ্ধকর পরিবেশে হরেক রকমের পিঠা পরিবেশনের আয়োজন করা হয়। পিঠা উৎসবে নেচে,গেয়ে বাঁধভাঙা আনন্দে ভাসেছে বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা।
বাংলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তন্নী সাহা বলেন,  ‘সারারাত জেগে বান্ধবীরা মিলে পিঠা বানিয়েছে।  তা সুন্দররূপে পরিবেশন করা হয়েছে। পিঠা খেয়ে ভোজন রসিকরা ভাল হলেই তবেই আমাদের শ্রম স্বার্থক হবে।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সভাপতি মোঃ আব্দুর রহমান বলেন, ‘পিঠা আবহমান কাল ধরে বাঙালির নিজস্ব ঐতিহ্য বহন করে আসছে। বশেমুরবিপ্রবি’র বাংলা বিভাগও চায় শিক্ষার্থীদের মাঝে বাংলাদেশের অতীত ঐতিহ্যকে ছড়িয়ে দিতে। আর এরই ধারাবাহিকতায় আমরা এই বছর পিঠা উৎসবের আয়োজন করেছি।