নারয়ণগঞ্জ রাজনীতি সারাদেশ

না. গঞ্জে ভোটারদের ‘দোয়া’ চান তারাও

5f289497453a8aadcc536d4b94b3eef8হটনিউজ২৪বিডি.কম : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে প্রধান দুই দলের প্রার্থীরাই আলোচনায় এগিয়ে। নানা প্রতিশ্রুতি আর আশ্বাসে জনমত টানার চেষ্টা করছেন আওয়ামী লীগের সেলিনা হায়াৎ আইভী ও বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন খান। তবে গণমাধ্যম বা রাজনীতির মাঠে খুব একটা সরব না হলেও বসে নেই অন্য প্রার্থীরাও। দুই দলের বাইরে গিয়ে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের বিষয়ে জনমত গড়তে চান তারা। জিতলে আধুনিক ও মডেল নারায়ণগঞ্জ গড়ে তোলার আশ্বাস দিচ্ছেন বড় দলের প্রার্থীদের দাপটে আড়ালে পড়ে যাওয়া এই প্রার্থীরা।

আগামী ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৯ জন সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া ৯টি সংরক্ষিত (নারী) কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন ও ২৭ ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৭৫ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

যে ৯জন মেয়র পদে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন তারা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, বিএনপি মনোনীত অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, ইসলামী আন্দোলনের মুফতি মাসুম বিল্লাহ, জাসদের মোসলেমউদ্দিন, এলডিপির কামাল প্রধান, কল্যাণ পার্টির রাশেদ ফেরদৌস, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কথিত বিএনপি নেতা সুলতান মাহমুদ, ইসলামী ঐক্যজোটের এজহারুল ইসলাম।

ইসলামী আন্দোলন মহানগর শাখার সভাপতি মুফতি মাসুম বিল্লাহ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জবাসীর দোয়া ও সমর্থন পেলে নারায়ণগঞ্জকে একটি আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আল্লাহর রহমতে মেয়র নির্বাচিত হলে প্রথমেই যানজট নিরসনে কাজ করবো। এছাড়া বিসিক ও আদমজীসহ শিল্পনগরীর বিভিন্ন স্থানে গড়ে ওঠা অসংখ্য শিল্পপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করবো। পুনর্বাসনের আগে হকারদের উচ্ছেদ করবো না। মাদক নির্মূলে কাজ করবো। গরীব দুঃখীদের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করবো। আমি সবার দোয়া প্রার্থনা করি।’

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল হটনিউজ২৪বিডিকে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের শুরুতেই নৌকা-ধানের শীষের প্রার্থীদের অপরাজনীতির কারণে নারায়ণগঞ্জবাসী অতিষ্ঠ। বিগত দিনে এই ক্ষমতাসীন দলগুলোর হিংসা, হানাহানি, খুনোখুনি, দখলবাজি, টেন্ডারবাজি এবং সীমাহীন লুটপাটের ঘটনা দেখে অতিষ্ঠ জনগণ নতুন নেতৃত্ব চায়। এই মুখোশধারী ও লুটপাটকারী দলগুলো আবার নতুন করে ভোট ভিক্ষায় জনগণের কাছে হাজির হলেও জনগণ এই মুখোশধারীদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে। তাই নারায়ণগঞ্জকে সন্ত্রাস, দখলদারিত্ব ও দুবৃত্তায়নের হাত থেকে রক্ষা করে পরিবারতন্ত্রের বাইরে আধুনিক ও গণমানুষের সিটি করপোরেশন হিসেব গড়ে তোলার অঙ্গীকার নিয়ে মেয়র পদে আমাকে জনগণ ভোট দেবে বলে আশা করি।’

জাসদ নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সেক্রেটারি মোসলেম উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘জাসদ এবার নারায়ণগঞ্জে জিতলে আধুনিক একটি নারায়ণগঞ্জ গড়ে তোলা হবে।’

স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা সুলতান মাহমুদ হটনিউজ২৪বিডিকে বলেন, ‘আমি জনগণের অধিকার আদায়ের জন্যই প্রার্থী হয়েছি। আমি মনে করি ভোটাররা এখন তরুণ নেতৃত্বের হাতেই দায়িত্ব তুলে দেবে।’