আন্তর্জাতিক

আসন্ন মার্কিন সরকারে পরিবারতন্ত্রের ছায়া!

trump_45842আন্তর্জাতিক ॥ হটনিউজ২৪বিডি.কম : এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োগ পাচ্ছেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ট্রাম্পের স্বজনরা। এ ঘটনাকে আগে থেকেই হোয়াইট হাউসে পরিবারতন্ত্রের ছায়া হিসেবে দেখছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষরা। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ না নিলেও আমেরিকার নয়া প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গদ বৃহস্পতিবার জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সাথে দেখা করলেন মেয়ে ইভাঙ্কাকে নিয়ে। খবরে প্রকাশ, ট্রাম্প দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম স্ত্রীর এ মেয়েকে জাপানের রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দেয়া হতে পারে।

কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, ট্রাম্পের জামাই জারেড কুশনারও (ইভাঙ্কার স্বামী) বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি পদ পেতে চলেছেন ট্রাম্পের প্রশাসনে। এ খবর প্রকাশের পর পর্যবেক্ষরা বলছেন, এটি আমেরিকার ইতিহাসে নজীরবিহীন। এদিকে হোয়াইট হাউসের আভ্যন্তরীন বিষয়ের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে পরিচিত কূটনীতিকরা এ ঘটনার পর আগামী দিনে হোয়াইট হাউস ও মার্কিন প্রশাসনে পরিবারতন্ত্রের ছায়া পড়ার আশঙ্কা করছেন।
নতুন ফার্স্ট লেডিকে এবার কীভাবে সামলাবে আমেরিকা, তার সদুত্তর পাওয়ার আগেই গোটা বিশ্ব জেনে নিল আগামী দিনে কী চোখে দেখতে হবে আমেরিকার ফার্স্ট ডটারকে! ট্রাম্প প্লাজার বিলাসবহুল রিসিপশন রুমে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ও তার সঙ্গী প্রতিনিধিদের সাথে যখন কথা বলছিলেন নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট, তখন ইভাঙ্কাকে প্রায় সারাক্ষণই তার বাবার পাশে পাশে থাকতে দেখা যায়।

ইভাঙ্কা আগে ছিলেন আমেরিকার একজন ডাকসাইটে মডেল। এখন বিজনেস এক্সিকিউটিভ। আর ইভাঙ্কার পাশে পাশেই ছিলেন তার স্বামী রিয়েল এস্টেট ডেভেলপার ও প্রকাশক জারেড কুশনার। ম্যানহাটনে ট্রাম্প টাওয়ার বা ট্রাম্প প্লাজায় জাপানি প্রধানমন্ত্রীর সাথে ট্রাম্পের সাক্ষাৎ সরকারিভাবে সংবাদমাধ্যমকেও জানানো হয়নি। হয়তো ট্রাম্পের উপদেষ্টারা ভেবেছিলেন, টের পাবে না কাকপক্ষীও! কিন্তু জাপানের প্রধানমন্ত্রী আমেরিকার নতুন প্রেসিডেন্টের সাথে দেখা করতে এসেছেন, আর তার পিছু নেবে না জাপানি সংবাদমনাধ্যম, তা কি হয়? হয়ওনি। তারা ছবিও তুলেছে পুরো অনুষ্ঠানের।