জাতীয় বরিশাল ভোলা শিক্ষাঙ্গন

নাবিলা হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবী

unnamed ভোলা প্রতিনিধি: নাবিলা হত্যাকারীদের গ্রেফতার পূর্বক শাস্তির দাবীতে ফুঁসে উঠেছে ভোলার উত্তর চর ভেদুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও এলাকার আপামর সাধারণ জনগণ। হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে সোমবার দুপুরে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে উত্তর চর ভেদুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কয়েক শতাধিক শিক্ষার্থী ও উত্তর ভেদুরিয়া ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধন সফল করার জন্য সকাল ১১টার পূর্বেই বিভিন্ন শ্রেণীর-পেশার মানুষ উত্তর চর ভেদুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে জড়ো হতে থাকে। নানান স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন।
বিভিন্ন ধরনের লেখা প্লাকার্ড নিয়ে মানববন্ধনে উপস্থিত হয় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। এক পর্যায়ে উত্তর চর ভেদুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গন যেন জনসমুদ্রে পরিণত হয়। বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গন মুখরিত হয়ে উঠে নাবিলা হত্যার বিচার চাই, ধর্ষন ও হত্যাকারীর ফাঁসি চাইসহ বিভিন্ন স্লোগানে।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উত্তর চর ভেদুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের গভর্নিং কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাজ্জাক মাষ্টার, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসান মিজানুর রহমান মিঠু, নাবিলার চাচা মোঃ আমিন, দৈনিক সমকণ্ঠের সম্পাদক আল-আমিন শাহরিয়ার, দৈনিক ভোলা টাইমস্ এর সম্পাদক মোঃ আলী জিন্নাহ রাজীব, কালবেলা ভোলা প্রতিনিধি ও দৈনিক ভোলা টাইমস্ এর যুগ্ম সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, দৈনিক প্রথম আলো ভোলা প্রতিনিধি নেয়ামতউল্লাহ, এনটিভি ভোলা প্রতিনিধি আফজাল হোসেন। এলাকাবাসীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মোঃ ছালাম মাতাব্বর ও মোঃ মান্নান প্রমূখ।

unnamed
এ সময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল ও সংবাদ প্রতিদিন ভোলা প্রতিনিধি ইকরামুল আলম, স্বাধীন সংবাদ ভোলা প্রতিনিধি মিজানুর রহমান, পশ্চিম ইলিশা ইউপি সদস্য মোঃ ফরিদ, উত্তর চর ভেদুরিয়া ৫নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার আলতাফ হোসেন, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ বিল্লাল প্রমূখ।
এসময় উত্তর চর ভেদুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসান মিজানুর রহমান মিঠু বলেন, বিগত ২০ বছর সে এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। কিন্তু ২০ বছরে এই প্রথমবার এই রকম ন্যাক্কারজনক ঘটনার সম্মুখীন তারা হয়েছেন। যখন খাদিজাকে কুপিয়ে জখম করে সরকারী দলের অঙ্গসংগঠনের কোন এক নেতা, তখন বিভিন্ন মন্ত্রালয় থেকে আসে নানান ধরনের বার্তা। সারাদেশে নির্দেশ দেয়া হয় মানববন্ধনের। কিন্তু যখন নিরীহ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মেয়ে নাবিলা খুন হয় কারো বিবৃতিও এখন পর্যন্ত পাচ্ছি না।
তিনি আরো বলেন, আগামি ১০দিনের মধ্যে আসামীদের গ্রেফতার করে বিচার এর আওতায় না আনলে এই উত্তর ভেদুরিয়া থেকে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেওয়ার হুমকি দেন তিনি।

unnamed
অন্যান্য বক্তারা বলেন, আমরা এখনও কোন ভাবেই স্বাধীন নই, নিরাপদ নই। একজন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর এমন বর্বরোচিত হামলা কখনো বোধগোম্য নয়। কেননা একটি স্বাধীন দেশে কোন দিনই এই ঘটনা কাম্য করা যায় না।
বর্তমান এই সকল ঘটনার প্রেক্ষিতে অভিবাবকরা থাকেন আতংকিত। কেননা বেশ কিছুদিন যাবৎ দেশের মধ্যে একের একের পর হত্যাযোগ্য চলছে। তনু, মিতু, আফসানা, রিশাসহ বেশ কয়েকটি হত্যাকান্ড ইতিমধ্যে ঘটে গেছে। কিন্তু কোন ঘটনার সঠিক বিচার হয় নি, তাই ভোলার মত জায়গাতেও এই ধরনের ঘটনা ঘটানোর দুঃসাহস পায়।
এ দেশে নারীরা সবচেয়ে অনিরাপদ, দেশের প্রশাসন নারীদের সুরক্ষা দিতে অক্ষমতা প্রকাশ করেছে প্রতিবার। প্রশাসন যদি আগের ঘটে যাওয়া প্রতিটা হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ বিচার করতেন তাহলে আজ নাবিলার মত মেধাবী শিক্ষার্থীরা মাঝ পথে এসে নির্যাতিত হয়ে ঝরে পরত না।
মানববন্ধন শেষে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি মাঝির হাট বাজার প্রাঙ্গনসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট প্রদিক্ষণ করে এসে আবার বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়।