আন্তর্জাতিক জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর

পাকিস্তান একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র : রাজনাথ সিং

imagesহটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা:  ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, পাকিস্তান একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে সেনা ঘাঁটিতে হামলার পরপরই সরাসরি ইসলামাবাদের দিকে এভাবেই অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছে নয়াদিল্লি। সীমান্তে সন্ত্রাসী কর্মকা- রোধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পরিকর। এদিকে হামলায় জড়িত থাকার কথা অস্বীকারের পাশাপাশি ভারতের অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই বলে সাফ জানিয়েছে পাকিস্তান। রবিবারের সন্ত্রাসী হামলায় নিহত সেনাদের প্রতি শেষশ্রদ্ধা জানান কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিসহ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সোমবার গার্ড অব অর্নার শেষে যার যার বাড়িতে তাদের মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয়। নিহত সেনা সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনা করে মসজিদেও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
রাজনাথ বলেন, কাশ্মীর নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। কিন্তু সন্ত্রাসী তৎপরতা কিছুতেই থামছে না। আমাদের সেনারা দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন। আমরা তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি। সীমান্ত এলাকায় ধোয়া উড়তে দেখে, প্রথমে নিত্যদিনের কোনো ঘটনা ভেবেছিলো। কিন্তু যখন হেলিকপ্টার ও ভারী অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে সেনাবহর দেখলাম, তখন বুঝলাম বড় কিছু ঘটেছে। আমরা স্থায়ীভাবে এমন সংঘাতের অবসান চাই। এ হামলার জন্য পাকিস্তান ভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদ-কে দায়ী করেছে ভারত।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসীদের মদদ দেয়ার অভিযোগ এনে, দেশটিকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে চিহ্নিত করে বিশ্ব সম্প্রদায় থেকে তাদের বিচ্ছিন্ন করে রাখা উচিত বলে টুইটারে উল্লেখ করেন। কাশ্মীরের উরি সেনাঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামলা পরবর্তী করণীয় নিয়ে সোমবার সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের বেশ কয়েকটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সকালে স্বরাষ্ট্র দপ্তরে জরুরি বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পরিকর। এর পরপরই মন্ত্রিপরিষদের সদস্যদের সঙ্গে জরুরি আলোচনায় বসেন প্রধানমন্ত্রী মোদি।
অন্যদিকে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বিশ্বনেতাদের ভাষণ দেয়ার আগমুহূর্তে এ হামলার ঘটনায় ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। অধিবেশনে যোগ দিতে রবিবার নিউইয়র্কে পৌঁছান পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। তার বক্তব্যে ভারতের কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি গুরুত্ব পেতে পারে। আর ভারত জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে ধরতে পারে বলে জানায় গণমাধ্যম।
গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, হামলাকারীদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পরিকর। এরই মধ্যে হামলার তদন্তে মাঠে নেমেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনএসএ। উরি সেনাঘাঁটিতে হামলার জন্য ভারত সরাসরি পাকিস্তানকে দায়ী করলেও এর কোনো ভিত্তি নেই জানিয়ে এক বিবৃতিতে একে অযৌক্তিক বক্তব্য ও ভারতের পাকিস্তানকে দোষারোপ করার প্রথাগত আচরণ বলেও উল্লেখ করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দপ্তর।