জাতীয় শিক্ষাঙ্গন সারাদেশ

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

  •  শিক্ষার মান প্রশ্নবিদ্ধ করে মার্টাসের শিক্ষারথীদের কে অর্থের বিনিময়ে অধিক নম্বর পাইয়ে দেওয়া শিক্ষার পরিবেশ ব্যাহত করে ক্ষমতার দন্ধে নয়জন শিক্ষক ডিপার্টমেন্ট প্রধানের কক্ষে তাল মেরে শিক্ষা কার্যত্রম বন্ধের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।শনিবার দুপুরে ডি আর ইউ ক্রাইম এ্যাসোসিয়েশন ক্র্যাব এজীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ করনে অধ্যাপক সেহরীশ খান।
  • বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনে বলা আছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯৯০ সালের ১২ ধারাতে উল্লেখিত অনুসারে একাডেমকি, প্রসাশনিক ও অর্থনৈতিক শৃংখলা ভংগের কনো ঘটনা ঘটলে তার সকল দ্বায়ভার উপাচার্যের উপর বর্তাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদে আরো বলা আছে, ১৯৯০ এর ৩৭(ঙ) অনুযায়ী শিক্ষকবৃন্দ ডিসিপ্লিন বিভাগের প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত কার্য ও দায়িত্ব সম্পাদন করার বিধান পালন করিবে। একইভাবে ১৯৯০ এর ২৯(৪) এর ডিসিপ্লিন প্রধান ডিনের সাধারণ তত্ত্বাবধানে কার্যের পরিকল্পনা ও সমন্বয় দায়ী থাকিবেন।
  • তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিসিপ্লিন বিভাগের পূর্ববর্তী প্রধান ডাঃ মনিরুজ্জামান, শামীম আহসান ও তারিক হাসানসহ কতিপয় শিক্ষক শৃংখলা ভঙ্গ করে বিভাগের প্রধানকে পদস্থ খোলন করতে নানাবিধ অনিয়মের বেড়াজাল তৈরি করে।বিশ্ববিদ্যালয়ের উল্লেখিত সকল আইন উপেক্ষা করে অনিয়মতান্ত্রিক জটিলতা তৈরি করে ডিসিপ্লিন প্রধানের অফিসে তালাবদ্ধ করে তাকে বিভিন্নভাবে লাঞ্চিত ও প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। এ ঘটনায় ডিসিপ্লিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সেহরীশ খান হরিণটানা থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরী করেছে।