জাতীয় দিনাজপুর রংপুর

ফুলবাড়ীত ডাকাতের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ

0af4bf02-dcaa-4ae6-9b98-ebf3f3c284a8রাইসুল ইসলাম, পার্বতীপুর, দিনাজপুর: দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার মধ্যপাড়া ও ফুলবাড়ী মহাসড়কে আজ বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১টায় পুলিশ ও ডাকাত দলের মধ্যে এক সংঘর্ষে হয়েছে। এতে দুই ডাকাত ও ছয় পুলিশ আহত হন। পুলিশের গুলিতে সাগর হোসেন (৩৯) এবং বাবুল হোসেন (৪৫) নামে দুই ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পুলিশ ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে তাদের অবস্থার অবনতি হলে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অন্যদিকে, আহত ৬ পুলিশকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
থানা সূত্রে জানা যায়, আফতাবগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে আজ বৃহম্পতিবার রাত সাড়ে ১২টায় পুলিশের একটি টহল দলকে মধ্যপাড়া-ফুলবাড়ী মহাসড়কের নলশীষা ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে রাস্তার দু’পাশের গাছের সাথে রশি বেঁধে ১০/১২জনের সংঘবদ্ধ একটি ডাকাতদল পথরোধ করে। এসময় ফাঁড়ি ইনচার্জ মিজানুর রহমান আত্মরক্ষার্থে ডাকাতদলকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়েন। এতে ডাকতদলটি মারমুখি হয়ে পুলিশের ওপর পাল্টা আক্রমণ করলে বাকী পুলিশ সদস্যরা গুলি ছোঁড়ে। পুলিশের সাকল্যে ১৮ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ার এক পর্যায়ে ডাকতদলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে পালিয়ে যায়। পুলিশের গুলিতে আহত সাগর হোসেন (৩৯) এবং মোঃ বাবলুর (৪৫) বাড়ি রংপুর জেলার বদরগঞ্জ উপজেলার জামবাড়ী ও বাউচন্ডি গ্রামে। সাগরের পিতার নাম মাহাবুল ইসলাম ও মোঃ বাবুলের বাবার নাম মৃত-আজিজার রহমান। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, নবাবগঞ্জ উপজেলার আফতাবগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মোঃ মিজানুর রহমান, এএসআই মোঃ আনোয়ার, কনেষ্টবল মোঃ হাফিজুল ইসলাম, মোঃ ইমদাদুল, মোঃ সেরাজুল ও মোঃ মোজাহার।
এ ঘটনার পর সহকারী পুলিশ সুপার (ফুলবাড়ী সার্কেল) মো. ফয়জুর রহামান, ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোকসেদ আলী ও নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইসমাইল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এ ব্যাপারে আফতাবগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান বাদী হয়ে আটককৃত গুলিবিদ্ধ ২ ডাকাতসহ অজ্ঞাতনামা ডাকাত সদস্যদের নামে একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেন।