অপরাধ বরিশাল ভোলা

ভোলার আলীনগরে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রচারণায় বাঁধা

indexভোলা প্রতিনিধি: প্রথম দফার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে ভোলা সদর উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন মুখর হয়ে উঠেছে। চলছে পুরোদমে প্রচার-প্রচারণা। প্রার্থীরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে মন জয় করাসহ বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। এই প্রচারণায় ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রচারণায় বাঁধা সৃষ্টি করছে। সাথে সাথে স্বতন্ত্র প্রার্থীদেরকে বিভিন্ন প্রকারে হুমকি-ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এমনকি তাদের প্রচারণা লক্ষ করে বোমা বিস্ফোরণ ও গুলি করারও অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল ৫ মার্চ দুপুরে তাদের নিজস্ব বাড়ীতে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোলা সদর উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা তাদের প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এই ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছে। প্রার্থীরা তাদের প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। কিন্তু এ প্রচারণায় ক্ষমতাসীন আওয়মীলীগ দলের চেয়ারম্যান প্রার্থীর নেতা-কর্মীরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর নেতা-কর্মীদের প্রচার-প্রচারণায় বাঁধা-প্রতিবন্ধকতা, গুলি ও বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে জনমনে ভীতির সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
সংবাদ সম্মেলনে স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহিদুল হক শুভ বলেন, আমি আলীনগরবাসীর দাবির মুখে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে দাড়াই। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই আমার গণজোয়ার দেখে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনিত প্রার্থী বশির আহম্মেদ বিভিন্নভাবে আমাকে এবং আমার কর্মীদেরকে হুমকি-ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এমনকি ভোট ছিনিয়ে নেয়ারও পায়তারা চালাচ্ছে। নির্বাচনের দিন ভোটকেন্দ্র দখল ও তার প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের হামলার উদ্দেশ্যে প্রায় ২ হাজার লগি-বৈঠা ও রাম দা বানিয়েছে বলেও অভিযোগ তুলেন তিনি।
শুভ আরো বলেন, গভীর রাতে তার কর্মী-সমর্থকদের বাড়ির সামনে বোমা ও গুলি করে ভয় দেখানো হচ্ছে। এ বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হলেও তারা এখনও এসব অস্ত্র ও লগি-বৈঠা উদ্ধার করনি। তারা নৌকার পক্ষে কাজ করছে বলেও মন্তব্য করছেন তিনি। তিনি বলেন, তফসিল ঘোষণার পর থেকে তার ৮ জন কর্মীকে মারধর ও বসত বাড়িতে হমলা করা হয়েছে। আওয়ামীলীগ দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী বশির আহম্মেদ আমার গণজোয়ার দেখে পরাজয়ের ভয়ে নানা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তিনি তার নির্বাচনী অফিস ও বসত বাড়ি ভাংচুর করে আমার কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়ার হুমকি দিচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, এসব বিষয়ে ভোলা প্রশাসন, নির্বাচন কমিশন ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার এবং রির্টানিং অফিসার বরাবর ২৬ ও ২৭ ফেব্রুয়ারী দু’টি লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরও কোন প্রকার প্রতিকার পাই নি।
অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী সানজিদা হক একই অভিযোগ তোলেন ক্ষমতাসীন দলের চেয়ারম্যান প্রার্থী বশির আহম্মেদের বিরুদ্ধে। তিনি লিখিত অভিযোগে বলেন, তার কর্মী-সমর্থকদেরকেও প্রচার-প্রচারণা না করার জন্য হুমকি-ধমকিসহ বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, গতকাল ৪ মার্চ বিকেলে নির্বাচনী প্রচারে বের হলে বশির আহমেদের পালিত ক্যাডাররা তার গাড়িতে হামলা করে এবং গাড়ির সামনে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। পরে এ খবর প্রশাসনকে জানানো হলে ভোলা থানার এসআই আমির হোসেন ঘটনাস্থলে এসে তাকে উদ্ধার করেন। এই অবস্থায় শুধু তারা (দুই প্রার্থী) নন আলীনগরের সাধারণ ভোটাররাও নিরাপত্তাহীনতা ভুগছে বলেও মন্তব্য করেন তারা। জাহিদুল হক শুভ ও সানজিদা হক উভয়েই বর্তমান চেয়ারম্যান বশির আহম্মেদের সন্ত্রাসী বাহিনীর কারণে তাদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার কাজ করতে পারছেন না বলে অভিযোগ তুলেন। এভাবে চলতে থাকলে ভোলার আলীনগরে নির্বাচন সুষ্ঠ হবে না বলেও মন্তব্য করেন। তারা নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন।