খুলনা জাতীয় রাজনীতি

জাপা’র নেতাকর্মীরা পরীক্ষিত সৈনিক- মহাসচিব রুহুল আমিন

jessore pic (japa)রিপন হোসেন, যশোর প্রতিনিধি: জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেছেন, অনেক চড়াই, উৎরাই অন্ধকার ছেদ ও ভেদ করে জাতীয় পার্টি সাংগঠনিকভাবে মজবুত হয়েছে অনেক লোক, চাপে জাতীয় পার্টির অনেকে বড় দুটি রাজিৈনত দলে চলে গেছেন। কিন্ত যারা আছেন তারা সকলেই পরীক্ষিত সৈনিক। বিদেশীরাও বলছেন আমাদের সামনে সম্ভাবনাময় দিন অপেক্ষা করছে। তাই তৃনমূলের নেতাকর্মীদের সাথে আরও যোগাযোগ বাড়াতে হবে।

মঙ্গলবার বিকেলে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে খুলনা বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় প্রাধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা জাপা’র সভাপতি শরিফুল ইসলাম সরু চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রতিনিধি সভায় জাপা মহাসচিব আরও বলেন, দল বড় হয়েছে। তাই কিছু জেলায় নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা থাকবে। তবে মনে রাখতে হবে পার্টির শৃংখলা বিরোধী কোন কর্মকাণ্ড করা যাবে না। আগামি দিনে জাপা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় যাবে। বড় দুই রাজনৈতিক দলকে দেখিয়ে দেয়া হবে জাপায় এদেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করতে পারে।

তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদকে ভালবেসে জাতীয় পার্টির সাথে আছেন। পল্লীবন্ধু এরশাদের ওপর আস্থা রেখে দলকে আরো সংগঠিত করুণ। আপনাদের মতামতের ভিত্তিতে সৎ যোগ্য ও ধৈয্যশীল নেতাকে আগামি নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হবে। যেসব ওয়ার্ড, ইউনিয়ন,পৌর, উপজেলা ও জেলায় কমিটি নেই সেগুলোতে কমিটি গঠন করে দলকে সাংগঠনিক ভাবে আরো শক্তিশালী করতে হবে।

প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এমপি আবদুল জব্বার, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী দিদার বখত, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট হাসান সিরাজ সুজা, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মেজর (অব:) গাজী আশরাফুল আলম, কেন্দ্রীয় নেতা মাতলুব হোসেন লিখন, ফিরোজ খন্দকার, আজাহার হোসেন ও আশরাফুজ্জামান আশু প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন জেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন রাজীব।

খুলনা বিভগের ৮ জেলার শীর্ষ নেতারা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করেন।