খুলনা প্রধান খবর

খুলনায় সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই : সিইসি

9-6-2013 (1)খুলনা ব্যুরো : প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিব উদ্দিন আহমদ বলেছেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিসি) এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে কোন সমস্যা নেই। এখন পর্যন্ত এ মহানগরীর সামগ্রিক পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে। এ অবস্থায় খুলনায় সেনা মোতায়েনের কোন প্রয়োজন নেই। তিনি বলেন, আইন ও আচরণবিধি সকলকেই মেনে চলতে হবে। আইন প্রয়োগ ও আইচরণবিধি বাস্তবায়নে কোন প্রকার ছাড় দেয়া হবে না। এ ক্ষেত্রে রিটার্নিং অফিসার ও পুলিশ প্রশাসনকে তিনি কঠোর দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।

রোববার দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, স্বাধীন চিন্তার মাধ্যমে জনগণই নির্ধারণ করবেন তারা কাকে ভোট দেবেন। কে হবেন তাদের প্রতিনিধি। তবে, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট সম্পন্ন করতে প্রার্থীরাই গুরুত্বপূর্ণ বূমিকা পালন করতে পানে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, প্রার্থী এ ক্ষেত্রে তাদের কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে কাউন্সেলিং করতে পারেন। আইন ও আচরণবিধি সম্পর্কে তাদের সচেতন করে তুললেই ভোটের পরিবেশ শান্তিপূর্ন থাকতে পারে।

 

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন আহমদ। স্বাগত বক্তৃতা করেন নির্বাচন কমিশন বিভাগের সচিব ড. মোহাম্মদ সাদিক। বক্তৃতা করেন মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক, মনিরুজ্জামান মনি ও শফিকুল ইসলাম মধু, কাউন্সিলর প্রার্থী কেএম হুমায়ুন কবীর, মোতালেব মিয়া, সাহিদা বেগম, হায়িজুর রহমান হাফিজ, মোঃ সাইফুর রহমান স্বপন, শেখ আবু আরিফ টিটো, মোঃ শামসুজ্জামান মিয়া স্বপনসহ দৈনিক র্পর্বাঞ্চল সম্পাদক লিয়াকত আলী, এসএম জাহিদ হোসেন প্রমুখ।

 

মতবিনিময়কালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিইসি বলেন, নির্বাচন অবাধ,সুষ্ঠু , নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করতে নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর। এ ব্যাপারে কাউকে কোন ছাড় দেয়া হবে না। এ লক্ষ্যে তিনি নির্বাচনী আইন ও আচরণ বিধি মেনে চলার জন্য প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীসহ নির্বাচন কর্মকান্ডে জড়িতদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান। এ ব্যাপারে তিনি মিডিয়া কর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি আরও জানান নির্বাচনী আইন অনুযায়ী ভোট কেন্দ্রেই ভোট গণনা করা হবে এবং নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ভোট যোগ করে ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

 

প্রধান অতিথি প্রার্থীদের নির্বাচন সংক্রান্ত বিভিন্ন অভিযোগের জবাবে বলেন, আচরণ বিধি লংঘণকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে এবং ভোটকেন্দ্রের সার্বিক নিরাপত্তাও নিশ্চিত করা হবে। কালো টাকা বন্ধ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি বন্ধ করা নির্বাচন কমিশনের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এ ব্যাপারে প্রার্থীসহ সচেতন মহলকে আরও সোচ্চার ভূমিকা পালন করতে হবে। কারো বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোন অভিযোগ থাকলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে জানানোর জন্য তিনি অনুরোধ করেন। কেসিসি এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হিসেবে উলেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচনে এখন পর্যন্ত সেনাবাহিনী নিয়োগের কোন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি।