আন্তর্জাতিক

সান্তামনিকা কলেজে হামলা : বন্দুকধারীসহ নিহত ৫

shooting-articlelargeআর্ন্তজাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তামনিকা কলেজ ক্যাম্পাসে শুক্রবার বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি হামলার ঘটনায় ৪জন নিহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশের গুলিতে বন্দুকধারী নিজেও প্রাণ হারিয়েছেন।
পুলিশ প্রাথমিকভাবে ৬ জন নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করে। পরবর্তীতে তারা বন্দুকধারীসহ পাঁচজন নিহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বন্ধুকধারী একটি অ্যাসল্ট রাইফেল বহন করছিলেন। কালো পোশাক, গানবেল্ট পড়ে একটি বাড়ি থেকে গুলি করতে করতে বেরিয়ে আসেন সে ব্যক্তি।
শহরের পুলিশ কর্মকর্তা রিচার্ড লুইস জানিয়েছেন, বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট গায়ে আনুমানিক ২০ বছর বয়সি এক যুবক একটি বাড়িতে ঢুকে দুজনকে খুন করে। এরপর স্থানীয় কলেজে ঢুকে হত্যা করে আরো দুজনকে।
পরে বন্দুকধারী ওই যুবককে স্থানীয় কলেজের গ্রন্থাগারে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।
শহরের পুলিশ প্রধান জ্যাকুলিন সিব্রুকস বলেন, “গ্রন্থাগারে ঢুকেও ওই যুবক গুলি চালাতে থাকে। এ সময় সেখানে পুলিশ এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় এবং ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।”
হামলাকারী সঙ্গে আরো কেউ জড়িত ছিল কিনা তা এখনো পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যায় নি বলে জানান তিনি।
শুক্রবার দুপুরের সংঘঠিত এ ঘটনায় গুলিতে আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্র জানায়।
ওই সময় নৃশংস এ হামলার ঘটনাস্থল থেকে কিছুদূরে তহবিল সংগ্রহের কাজে ব্যস্ত ছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ।
প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় হরহামেশাই এ ধরনের গুলির ঘটনা ঘটে। এ সংকট থেকে উত্তরণে প্রশাসন যারপর নাই বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছে। সব ধরণের ব্যবস্থা নিলেও তাদের পক্ষে এসব ঘটনা এড়িয়ে চলা সম্ভব হচ্ছে না।
এর আগে ২০১২সালের ১৫ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাট রাজ্যে একটি স্কুলে এক বন্দুকধারীর নির্বিচারে গুলিতে ২০ স্কুলছাত্রসহ অন্তত ২৮ জন নিহত হয় এবং ২০০৭ সালে ভার্জিনিয়ায় বন্দুকধারীর গুলিতে ৩২ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।
সূত্র: বিবিসি