ঢাকা

বাস ও নছিমন মুখো মুখি সংঘর্ষে ৩ জন নিহত ৪০ জন আহত

সেতু ইসলাম,মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাস ও নছিমন মুখো মুখি সংঘর্ষে ৩ জন নিহত ৪০ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে ঢাকা-মাওয়া মহসড়কে মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার চালতিপাড়া নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে গেছে ঢাকা থেকে প্রায় অর্ধশত যাত্রী বোঝাই করে বিআরটিসি যাত্রীবাহী একটি বাস মাওয়ার উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে চালতিপাড়া নামক স্থানে পৌছালে বিপরিত দিক শ্রিনগর ছনবাড়িয়া চৌরাস্তা থেকে ছেড়ে আসা একটি নছিমনের সংঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে হলে ঘটনা স্থলেই ৩ জন নিহত ও ৪০ জন আহত হয়। নিহত ওই ৩ যাত্রীই নছিমনের যাত্রী বলে প্রতক্ষ দর্শীরা জানিয়েছেন। দুর্ঘটনায় যাত্রীবাহী বাসটি রাস্তার পার্শে খাদে পড়ে উল্টে যায় এবং নছিমনটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। নিহত ২ জনের নাম পরিচয় জানা গেছে একজনের নাম কাওসার(৩৫) সে শ্রীনগরের হাষাড়ার কুদ্রত আলীর পুত্র।অপর নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। আহত সকলকে ঢাকা এবং স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ঢাকা-মাওয়া মহা সড়কে প্রায় ১ ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে এ সড়কে দির্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং সন্ধা সাড়ে ৬ টার দিকে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসি জানান আইন না মেনে বে-পরোয়া ভাবে অদক্ষ ড্রাইভার দারা চালিত নিষিদ্ব নছিমনের কারনে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে প্রায়সই এ ধরনের দুঘর্টনা টি ঘটে চলছে। এর পরও প্রশাসনের এ বিষয়ে কোন নজরদারিত্ব নাই।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল বাসার ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে সন্ধা সাড়ে ৭ টার দিকে জানান, ঘটনা অবহিত হওয়ার সংঙ্গে সংঙ্গে পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্বার কাজে অংশ নেয়। এবং দুর্ঘটনা কবলিত বাসটিকে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় উদ্বারের চেষ্টা চালছে বলেও তিনি দাবী করেন। নিহত কাওসার নামের এক ব্যাক্তিকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অপর নিহতদের নাম পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।