অপরাধ খুলনা

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে গৃহবধুর অস্বাভাবিক মৃত্যু

jgkglkjসিরাজুল ইসলাম মল্লিক(ঝিনাইদহ):ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার বড়বামনদহ গ্রামের সোহেল রানার স্ত্রী রূপালী বেগম (১৮) গলায় ফাস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে রূপালীর শশুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে। ঘটনার বিবরণে প্রকাশ গত দেড় বছর পূর্বে মহেশপুর উপজেলার জলিলপুর গ্রামের ইনতাজ আলীর কন্যা রূপালী বেগম (১৮) কে পারিবারিকভাবে কোটচাঁদপুর উপজেলার বড়বামনদহ গ্রামের ওহিদুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানার সাথে বিবাহ দেয়। বিয়ের কিছুদিন পর সোহেল রানা ও তার পরিবারে লোকজন যৌতুকের দাবিতে রূপালীর উপর চাপ সৃষ্টি করে। গরিব পিতার কাছ থেকে ইতিপূর্বে সে বেশ কিছু টাকা এনেও দেয়। পরবর্তীতে আবারও চাপ সৃষ্টি করলে সে অসহায় পিতার কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা আনতে অপরাগতা প্রকাশ করে। তারপর থেকেই তার উপর নেমে আসে চরম নির্যাতন। এ নির্যাতনে তার স্বামী সহ পরিবারে সকলেই অংশ নেয় । এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে রূপালী বেগমের লাশ ঘরের ভিতর দড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। প্রতিবেশিরা রূপালীকে তাৎক্ষনিক কোটচাঁদপুর থানা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসে। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। এ ঘটনায় স্বামী সহ শশুর পরিবারের সকলের দাবি রূপালী আত্মহত্যা করেছে। কিন্ত পরিবারের সকলেই পলাতক থাকায় এলাকাবাসীর সন্দেহ যে আসলেই এটি আত্মহত্যা না পরিকল্পিত হত্যা? পুলিশ জানায় লাশের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে গলায় সামান্য দাগ পাওয়া গেছে। লাশ ময়না তদন্ত করলে প্রকৃত তথ্য বের হবে। এ অবস্থায় এলাকাবাসী রূপালীর পরিবারের লোকজনের সাথে অর্থের বিনিময়ে আপোষ মিমাংসা করে লাশ ময়না তদন্ত ছাড়াই দাপন করেছে বলে জানা গেছে।