বরিশাল শিক্ষাঙ্গন

চরম অর্থ সঙ্কটে এসএসসি পাশ লেখাপড়া বন্ধের আশঙ্কা

kalapara-05 (07-06-13) Rahimaমেজবাহউদ্দিন মাননু: অর্থাভাবে মেধাবী শিক্ষার্থী রাহিমার উচ্চমাধ্যমিকে ভর্তি হওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। রাহিমার বাবা নেই, দিনমজুর মায়ের যোগান দেয়া অর্থে সংসার চলে না। তারপরও কোন ধরনের প্রাইভেট ছাড়াই এসএসসি পরীক্ষায় কৃতীত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়। এখন চরম আর্থিক সঙ্কটে কোন কলেজে ভর্তি হওয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে। উপজেলার আন্ধারমানিক নদীর দক্ষিণপাড়ের নীলগঞ্জ আবাসনের বাসিন্দা রাহিমা এখন মহাদুশ্চিন্তায় পড়েছে।জানা গেছে, রাহিমা এ বছর পৌর শহরের খেপুপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ব্যবসা শাখায় জিপিএ-৪.৬১ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। রাহিমা ও তার বোন ফাহিমা দুই কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়ায় তাদের মাকে ফেলে বাবা বজলু মিয়া উধাও হয়ে গেছে, এরপর নিরুদ্দেশ। সেই থেকে মা তাসলিমার জীবনযুদ্ধ শুরু হয় দুই মেয়েকে নিয়ে।তাসলিমা প্রথমদিকে দুই মেয়েকে নিয়ে পৌর শহরের অফিস মহল্লায় ঝুপড়িঘরে আশ্রয় নিয়ে বিভিন্ন বাড়িতে ঝিএর কাজ শুরু করেন। ২০০৫ সালে সেখান থেকে তাদের উচ্ছেদ করে দেয়া হয়। আশ্রয় জোটে নীলগঞ্জ আবাসনকেন্দ্র। মেয়ে দুটি বড় হয়ে খেপুপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভর্তি করেন। ঝিএর কাজে সংসারের যোগান দেয়া অসম্ভব হয়ে যায়। বাধ্য হয়ে হোটেলে পানি দেয়ার কাজ শুরু করেন। হাড়ভাঙ্গা খাটুনিতে তাসলিমা মেয়েদের লেখপড়ার হাল ছাড়েন নি। উপোস, অর্ধাহার আর অনাহারের সংসারে থেকেও এবছর এসএসসি পাশ করে বড় মেয়ে রাহিমা। মেয়েদের মুখের খাবার আর লেখাপড়ার যোগান দিতে গিয়ে অস্বাভাবিক কষ্টে তাসলিমা বহুবার বিনা চিকিৎসায় বিছানায় পড়ে থেকেছেন। বর্তমানে এসএসসি পাশ করা মেয়েকে কীভাবে কলেজে ভর্তি করাবেন এসব ভেবে এখন তাসলিমা দু’চোখে সর্ষেফুল দেখছেন। এরই মধ্যে ছোট মেয়ে সপ্তম শ্রেণী পড়–য়া ফাহিমার লেখাপড়া বন্ধ হয়ে গেছে। বর্তমানে সঙ্গতি বলতে তাসলিমার শুধু শারীরিক শক্তি আর সুস্থতা, তাও যেন ফুরিয়ে যাচ্ছে। চরম দারিদ্র্য আর অসহায়ত্ব এখন তাসলিমাকে অক্টোপাশের মতো ঘিরে ধরেছে। দিশেহারা এই মা তার সন্তানদের লেখাপড়া করানোর জন্য হৃদয়বান মানুষের কাছে সহায়তা চেয়েছেন। নইলে তার মেয়েদের লেখাপড়া করানোর সোনালী স্বপ্ন ধুলিস্যাৎ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তাসলিমার অশ্রুঝরা চোখের চাহনি আর মনের আকুতি, ‘ মোর মাইয়া দুইডারে লেহা পড়া করার একটা ব্যবস্থা কইর‌্যা দ্যান’।