রাজনীতি রাজশাহী

মানবতা বিরোধীচক্র যাতে নতুন করে নাশকতা সৃষ্টি না করতে পারে- রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার

এসএস মিঠু , জয়পুরহাট : রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার হেলালুদ্দিন আহমদ বলেছেন,‘ আযান,নামাজ এবং কারও মৃত্যু সংবাদ প্রচার করা ছাড়া, মসজিদের মাইক আর কোন কাজে ব্যবহার করা যাবে না। বিশেষ কোন মহল যাতে তাদের দলীয় প্রয়োজনে মসজিদের মাইক ব্যবহার না করতে পারে সে ব্যাপারে তিনি জেলার ঈমাম সম্প্রদায় সহ সংশ্লিষ্টদের সর্তক করে দেন। তিনি আরও বলেন,‘মানবতা বিরোধী অপরাধীদের বিচার বর্তমান সরকারের নির্বাচনী অঙ্গিকার।তাই আগামী দু’এক মাসের মধ্যেই মানবতা বিরোধী বাকি অপরাধীদের মামলার রায় ঘোষনা করা হবে।সুতরাং স্বাধীনতা ও মানবতা বিরোধীচক্র যাতে নতুন করে কোন ধরনের নাশকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা করতে না পারে সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সর্তক থাকতে হবে।প্রয়োজনে প্রশাসনের সর্বোচ্চ ক্ষমতা প্রয়োগ করে হলেও এ জেলার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করা হবে। ’

বৃহস্পতিবার দুুপুরে জয়পুরহাট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটি এবং জেলা সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটি’র বিশেষ সভায় মানবতা বিরোধী অপরাধী জামায়াত নেতা দেলওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায় ঘোষনার পর জয়পুরহাট জেলায় জামায়াত-শিবিরের নাশকতা ও তান্ডব এবং সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা,বাসা-বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ সহ সাম্প্রতিক রাজনৈতিক সহিসংসতা পর্যালোচনা করতে গিয়ে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।

জয়পুরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইয়াছিনের সভাপতিত্বে ওই সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাজশাহীর অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার অশোক কুমার বিশ্বাস,পুলিশ সুপার হামিদুল আলম,জয়পুরহাটের ৩বিজিবি’র উপ-অধিনায়ক মেজর ফিরোজ,র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পের অধিনায়ক এএসপি জাহিদুল ইসলাম, জয়পুরহাট জেলা পরিষদের প্রশাসক এসএম সোলায়মান আলী, জয়পুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল আজিজ মোল্লা,আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট মোমিন আহমেদ চৌধুরী জিপি, অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল পিপি,গোলাম হক্কানী,জেলা জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান রেবেকা সুলতানা, সাংবাদিক শাহজাহান সিরাজ মিঠু, এনজিও নির্বাহী অপূর্ব সরকার,মাহবুবা বেগম প্রমুখ।সভায় জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য ছাড়াও সাংবাদিক,আইনজীবী,রাজনীতিক,জনপ্রতিনিধি,শিক্ষক,ঈমাম,ব্যবসায়ী,এনজিও’ ও নারী নেত্রী সহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

বিকালে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার হেলালুদ্দিন আহমদ,অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার অশোক কুমার বিশ্বাস, জয়পুরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইয়াছিন,পুলিশ সুপার হামিদুল আলম,স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও জনপ্রতিনিধি নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে সাম্প্রতিক জামায়াত-শিবিরের তান্ডবাক্রান্ত জেলার সীমান্তবর্তী পাঁচবিবি উপজেলার কয়েকটি সংখ্যালঘু পল্লী ও কালাই উপজেলার মাত্রাই ইউনিয়ন পরিষদ ভবন পরিদর্শন ও স্থানীয় জনগনের সাথে মতবিনিময় করেন।