প্রধান খবর

এ সরকারের শেষ বাজেট পেশ শুরু

Budget-graphbg0620130606042113সংসদ ভবন থেকে: বিরোধী দলহীন সংসদে শুরু হয়েছে মহাজোট সরকারের শেষ বাজেট পেশ উপস্থাপনা। বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া ৩টার দিকে প্রথম নারী স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বাজেট পেশ শুরু করেন।

প্রথ্ম পর্যায়ে ২০১২-১৩ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট ও ২০১৩-১৪ অর্থ বছরের বাজেট উপস্থাপন করছেন অর্থমন্ত্রী।

দ্বিতীয় পর্যায়ে সরকারের আর্থিক প্রস্তাবাবলী কার্যকরণ ও কিছু আইন সংশোধনের জন্য বিল উপস্থাপন করবেন তিনি।

বেলা ৩টা ১০ মিনিটে সংসদ নেতা প্রধানন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে অধিবেশন কক্ষে প্রবেশ করেন অর্থমন্ত্রী। একই সময়ে স্পিকার এসে আসন গ্রহণ করলে কোরআন তিলওয়াতের মাধ্যমে অধিবেশন শুরু হয়।

অর্থমন্ত্রীকে বাজেট পেশের আহবান জানান স্পিকার। বেলা ৩টা ১৬ মিনিটে অর্থমন্ত্রী বাজেট পেশ শুরু করেন।
এবারের বাজেটের আকার হচ্ছে ২ লাখ ২২ হাজার ৪৯১ কোটি টাকা। এটাই হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় কলেবরের বাজেট।

এ বাজেট চলতি অর্থবছরের মূল বাজেটের চেয়ে ১৬ শতাংশ বেশি। চলতি অর্থবছরে মূল বাজেটের আকার ছিল ১ লাখ ৯১ হাজার ৭৩৮ কোটি টাকা। তাই নতুন বাজেটে আগের বাজেটের সার্বিক ঘাটতি থাকছে ৫৫ হাজার ৩২ কোটি টাকা।

নতুন বাজেটে অনুন্নয়নমূলক ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৪৪৯ কোটি টাকা। এর মধ্যে অনুন্নয়ন রাজস্ব ব্যয় ১ লাখ ১৩ হাজার ৪৭১ কোটি টাকা। সরকারের অভ্যন্তরীণ ঋণের সুদ ২৬ হাজার ৩ কোটি টাকা ও বৈদেশিক ঋণের সুদ ১ হাজার ৭৪০ কোটি টাকা।

অনুন্নয়ন মূলধন ব্যয় ২০ হাজার ৯৭৮ কোটি টাকা, খাদ্য হিসেবে ২৬৩ কোটি টাকা এবং ঋণ ও অগ্রিম খাতে ব্যয় হবে ১৫ হাজার ৫০৪ কোটি টাকা।

আগের দিন মঙ্গলবার একই দিনে দ্বিতীয় দফা ওয়াক আউটের পর বাজেট পেশকালে সংসদে না আসার ঘোষণা দিয়েছে বিরোধী দল। তাই আগের বাজেট অধিবেশনের মতো এবারে বিরোধী দলকে ছাড়াই বাজেট পেশ হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গত ৩ জুন নবম জাতীয় সংসদের সর্বশেষ বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। দীর্ঘদিন সংসদ বর্জনের পর প্রধান বিরোধী দল বিএনপি বিকেল ৫টা ৫০ মিনিটে নবম সংসদের এই ১৮তম অধিবেশন যোগ দেয়। দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দলের সংসদ সদস্যরা সংসদে যোগ দেন।