অপরাধ জয়পুরহাট জাতীয় রাজশাহী

ক্ষেতলালে বাসে ককটেল হামলা: ছাদ থেকে পড়ে ১যাত্রীর মৃত্যু

 জয়পুরহাট প্রতিনিধি: রোববার বিকালে জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার করিমপুর এলাকায় যাত্রীবাহী বাসে ককটেল হামলা চালিয়েছে শিবির কর্মীরা। এতে উজ্জল (৪৩)নামে এক যাত্রী বাসের ছাদ থেকে পড়ে গুরুতর আহত হয়ে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তির পর সন্ধ্যায় মারা যান। অন্য দিকে এ ককটের হামলার পর পালানোর সময় কয়েকটি পেট্রোল বোমাসহ ৬শিবির কর্মীকে আটক করা হয়েছে ।উত্তেজিত এলাকাবাসী তাদের গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।পরে  আহতাবস্থায় ওই  ৬শিবির কর্মীকে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।এ ছাড়া শিবির কর্মীদের হামলায় আমিনুল ইসলাম নামে এক পুলিশ কনষ্টেবল আহত হয়েছেন বলে দাবি পুলিশের।আহত পুলিশ কনষ্টেবলকেও  ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আটক শিবির কর্মীরা হল-ইমন,আব্দুল খালেক,সানাউর রহমান,নূর আলম,আসাদুল্লাহ ও সোহেল।এদের বাড়ি জয়পুরহাটের হিচমি,ক্ষেতলাল,কালাই ও নওগাঁ জেলার পত্নিতলা এলাকায়।

এলাকাবাসী ও  ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রপ্তে কর্মকর্তা মুনির হোসেন জানায়,রোববার বিকালে ক্ষেতলাল উপজেলার ইটাখোলা সড়কের করিমপুর এলাকায় মোটর সাইকেল যোগে কয়েকজন শিবির কর্মী উপস্থিত হয়ে ১টি যাত্রীবাহী বাস লক্ষ্য করে ককটেল ছোঁড়ে । ওই ছাদে থাকা সময় ১যাত্রী তড়িঘড়ি করে  নামতে গিয়ে গুরুত্বর আহত  হয়ে  হাসপাতালে ভর্তির পর মারা যায়।

ওই সময় স্থানীয় জনতা শিবির কর্মীদের ধাওয়া করে ৩জনকে ধরে ফেলে।বাকি ৩শিবির কর্মী পালিয়ে যাওয়ার সময় নিশ্চিন্তা মোড়ে এলাকাবাসীরা মোটর সাইকেল সহ তাদের আটক করে গণধোলাই দিয়ে তাদের পুলিশে সোর্পদ করে । তাদের নিকট থেকে ৪টি পেট্রোল বোমা ও একটি ককটেল পাওয়া যায়। উত্তেজিত জনতা আটক শিবিরকর্মীদের ব্যবহৃত ১টি পালসার মোটর সাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়।আহত শিবিরকর্মীদের ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।