প্রধান খবর হটনিউজ স্পেশাল

চলমান সহিংসতা: মাথাচাড়া দিতে পারে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ

সহিংসতাহট নিউজ ডেস্ক : দেশব্যাপী চলমান সহিংসতা ও অস্থিরতার সুযোগ নিয়ে দেশে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ মাথাচাড়া দিতে পারে বলে আশঙ্কা নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের।

আর এ বিষয়টিকে মাথায় রেখেই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কাজ করা বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা উদ্বিগ্ন বলেও মনে করছেন পররাষ্ট্র বিশ্লেষকরা।  এ অবস্থা থেকে উত্তরণে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন তারা।

রাজনীতির নামে সহিংসতার আগুনে পুড়ছে দেশের অর্থনীতি।  চোট খাচ্ছে গণতান্ত্রিক আশাবাদ।  প্রায় প্রতিদিনই গুপ্ত হামলা আর পেট্রোল বোমায় দগ্ধ হচ্ছে সাধারণ মানুষ।  দু’বেলা দু’মুঠো খাবারের চেয়ে বড় অনিশ্চয়তার নাম এখন নিরাপত্তা।  বিশ্লেষকরা বলছেন, এমন পরিবেশেই দানা বাধে অপশক্তি, বিস্তৃত হয় আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদের শাখা প্রশাখা।  যে বাংলাদেশ হাঁটছে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার পথে, এখনই অস্থিরতার পথ রোধ না করলে ভবিষ্যতে সে বাংলাদেশ হয়ে উঠতে পারে সন্ত্রাসবাদের উর্বর ভূমি-এমনটাই আশঙ্কা তাদের।

নিরাপত্তা বিশ্লেষক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহেদুল আনাম খান বলেন, ‘আমাদের দেশে যে সকল নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আছে, তাদের প্রত্যেকেরই বাইরের দেশের জঙ্গি সংগঠনের সাথে লিংক আছে, যদি সরাসরিও না থাকে তবে সাইকোলজিক্যাল একটি লিংক আছে, সেক্ষেত্রে বিদেশি জঙ্গি সংগঠনের-তো তাদের সহায়তা করার সম্ভাবনা আছেই।’

নিরাপত্তা বিশ্লেষক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘আমি বলবো না অভয়ারণ্য, একটি উদ্বেগজনক অবস্থায় আছে, পুলিশের সাথে র‍্যাব কিংবা অন্যান্যরা তো ভিন্ন কাজে ব্যস্ত।  সেক্ষেত্রে তাদের রুটিন কাজ করার সময় কতটুকু?।’

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের বাংলাদেশ বিষয়ে সাম্প্রতিক উদ্বেগের পেছনে এ ধরনের আশঙ্কাও কাজ করছে বলে মনে করেন সাবেক রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘তারা চায়না এই এলাকাটা কোনোভাবে পানি ঘোলা হোক, আমাদের নিজের দেশ হোক কিংবা পাশের দেশ হোক ডিস্টেবিলাইজ করতে পারে এমন কোনো সমস্যা তারা রাখবে না, সুতরাং সন্ত্রাসবাদ একটি বড় ফ্যাক্টর।’

তবে আগাম প্রস্তুতি থাকলে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়ানো বাংলাদেশের জন্য সম্ভব হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।