প্রধান খবর রাজনীতি

মুখে সংলাপের কথা বললেও বিএনপি দেশকে ধ্বংসের যড়ষন্ত্র করছে

Sohinsotaহট নিউজ ডেস্ক : অবরোধের নামে ২০ দলীয় জোট দেশব্যাপী নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড চালিয়েছে বলে অভিযোগ করে দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে এর বিচার করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তারা আরো বলেন, মুখে সংলাপের কথা বললেও বিএনপি প্রকৃতপক্ষে দেশকে ধ্বংস করার যড়ষন্ত্রে মেতে উঠেছে।

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধে ১০ দিনের বেশি অতিবাহিত হয়ে গেছে। দিন যতো যাচ্ছে বাড়ছে সহিংসতার ঘটনা, বাড়ছে সহিংসতার শিকার সাধারণ মানুষের আহাজারি।

তবে এসব ঘটনা সত্ত্বেও দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবরোধ চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছেন অবরোধ আহ্বানকারী জোটের নেতারা।

এসব নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার নিরীহ মানুষদের হত্যার দায় বিএনপি নেত্রীকেই নিতে হবে। জনবিচ্ছিন্ন এ আন্দোলন তাদের জন্য আত্মঘাতী হবে বলেও তারা মন্তব্য করেন।
এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, ‘বিএনপির সামনে দু’টি পথই খোলা। হয় নাশকতা নির্ভর অপরাজনীতি করা নয়তো নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে ফিরে আসা। কারণ গণতন্ত্র ও নাশকতা সহাবস্থানের কোন সুযোগ নেই।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক মনে করেন, বিরোধী দল সব ব্যাপারে সরকারের সাথে একমত নাও হতে পারে। এটি তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার । তবে সেই বিরোধিতা তো জনগণের সাথে নয়। বিরোধীদলের যদি সরকারের ওপর কোনো আক্রোশ থাকে তাহলে তার খেসারত জনগণকে কেন দিতে হবে?

তিনি আরো বলেন, যারা নাশকতা করছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে প্রত্যেকের বিচার করা হোক। যাতে করে ভবিষ্যতে কেউ রাজনীতির নামে রক্তপিপাসা মেটাতে না পারে।

তারা আরো বলেন, বিএনপি জোট এখন দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। মিথ্যাচার করে পার পাবার কোন সুযোগ নেই তাদের।

এ সম্পর্কে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘মিথ্যাচারের কোনো সুযোগ নেই। জনগণ সবই দেখছে কারা এই নাশকতা করছে। যারা অন্যায়ভাবে পেট্রোল বোমা দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করছে তাদের প্রত্যেকের বিচারের আওতায় আনা হবে।’

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিএনপির নাশকতার পথ পরিহার করা উচিত বলেও মনে করেন দলটির নেতারা।