জাতীয় প্রধান খবর

‘দুর্বৃত্তদের হামলায় যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হলে ক্ষতিপূরণ দেবে সরকার’

কামালনিজস্ব প্রতিবেদক : অবরোধ চলাকালে সড়কে দুর্বৃত্তদের হামলায় কোনো যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত এবং যাত্রী হতাহত হলে সরকার ক্ষতিপূরণ দেবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সারাদেশে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে শুক্রবার বিকেলে গাবতলীতে পরিবহন মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে সরকারের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি।

তার এমন আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে বৈঠক থেকে বাস মালিকরাও সড়ক-মহাসড়কে যান চালাচল অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন। তবে সাধারণ যাত্রীরা বলছেন, নাশকতার হাত থেকে পরিবহনের পাশাপাশি যাত্রী নিরাপত্তার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে সরকারকেই।

দেশ জুড়ে রাজনৈতিক অস্থিরতায় বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পরিবহন খাত। সম্প্রতি বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলের ডাকা অবরোধেও সড়ক মহাসড়কগুলোতে গাড়ি ভাঙচুর ও পোড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। আর তাই লোকসানের যাঁতাকলে পরিবহন খাত।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এরপর থেকে পরিবহনে নাশকতা হলে সেই ক্ষতিপূরণ দেবে সরকার।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘পরিবহন মালিক ভাইদের বলবো, আপনারা নির্ভয়ে রাস্তায় গাড়ি নামান এবং চলাচল সচল রাখুন। রাস্তায় ভাংচুর হলে আপনাদের যদি কোন ক্ষতি হয়, তাহলে আপনারা সেই ক্ষতির হিসাব রাখুন। আপনারা যদি এই ক্ষতিপূরণ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি থেকে না পান, সেক্ষেত্রে আমরা সরকার থেকে এই ক্ষতিপূরণ দিয়ে দিবো।’

সরকারের এমন আশ্বাসের পর পরিবহন মালিকরাও সড়কে যানচলাচল স্বাভাবিক রাখার ঘোষণা দেন।

অবরোধের দোহাই দিয়ে পরিবহন বন্ধ রাখলে কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়ারও ঘোষণা দেন স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা।

তিনি বলেন, ‘পরিবহন মালিকরা এরপরও যদি যান চলাচল বন্ধ রাখেন, তবে আমরা জেলা প্রশাসকের সাথে কথা বলে কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়ার ব্যবস্থা করবো।’

তবে যাদের জন্য এই উদ্যোগ সেই সাধারণ যাত্রীরা বলছেন, পরিবহনের পাশাপাশি দিতে হবে জীবনের নিরাপত্তাও।

যাত্রীরা জানান, সরকার বাসের নিরাপত্তা দিলেও তা যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে না। তারা সরকারকে যেকোনো মূল্যে যাত্রীদের নিরাপত্তা দেওয়ার দাবি জানান।

বৈঠকে সারাদেশে যানচলাচল স্বাভাবিক রাখতে হেলিকপ্টার টহল দেবার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী।