রংপুর সারাদেশ

রংপুর বিভাগে হরতাল, বিএনপি-জামায়াতের ৩৬ জন গ্রেফতার

Rongpurইকবাল হোসেন, রংপুর প্রতিনিধি : ককটেল বিস্ফোরণ ও বিক্ষোভ মিছিলে মধ্যদিয়ে রংপুর বিভাগে আজ বুধবার ছিল সকাল-সন্ধ্যা হরতাল। নাশকতার অভিযোগে জেলার বিভিন্নস্থান থেকে বিএনপি-জামায়াতের ৩৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
নগরীর গ্রান্ড হোটেল মোড়স্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পর পর দুটি ককটলে বিস্ফোরণ ঘটনায় দুর্বৃত্তরা । এসময় পথচরীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তবে এতে কেউ আহত হয়নি। একই সময়ে শালবন ইন্দ্রামোড় থেকে জেলা যুবদল সভাপতি রইচ আহম্মেদ এর নেতৃত্বে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল করে। দলীয় কার্যালয় থেকে জেলা ও মহানগর বিএনপি মিছিল করে। মিছিলটি প্রেসক্লাব চত্বর থেকে আবার দলীয় কার্যালয়ে ফিরে যায় । সেখানে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মহানগর বিএনপির সভাপতি মোজাফ্ফর হোসেন, সাধারন সম্পাদক সামসুজ্জামান সামু, জেলা বিএনপির সভাপতি এমদাদুল হক ভরসা, সাধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
হরতালে নগরীতে খাবার ও ঔষধের দোকানপাট খোলা থাকলেও অধিকাংশ বিপনী বিতান ও বড় বড় মার্কেটগুলো বন্ধ রয়েছে। এই সুযোগে শাকসবজিসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রে দাম বেড়েছে দ্বিগুনেরও বেশী।  ঝিমিয়ে পড়েছে ব্যবসা বাণিজ্য বেড়েছে মানুষের দুর্ভোগ।
হরতাল ও অবরোধের কারণে রংপুর থেকে ঢাকাসহ দুরপাল্লার, জেলা ও আন্ত উপজেলা কোন রুটেই  যাত্রীবাহি ও পন্যবাহি কোন ভারী, মাঝারি যানবাহন চলাচল করছে না। সাধারণ মানুষের যাতায়াতে মহেন্দ্রা, অটো রিকশা এবং ট্রেনই এখন  যাতায়াতের মাধ্যম। কর্মজীবি মানুষ পড়েছেন সব চেয়ে বেশি বিপাকে। তারা কর্মস্থলে স্বাভাবিকভাবে যেতে পারছেন না। ঢাকাগামী রংপুর এক্সপ্রেসের ট্রেনের টিকেট কালোবাজরে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হতে দেখা গেছে। ফলে মানুষ দূবিসহ ভোগান্তিতে পড়েছে।
কোতয়ালি থানার ওসি আবদুল কাদের জিলানী জানান, নাশকতার অভিযোগে বিএনপি-জামায়াতের ৩৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি (ভারপ্রাপ্ত) হুমায়ুন কবির জানান, ‘হরতাল ও অবরোধকে ঘিরে আইনশৃংখলা বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। কেউ কর্মসূচীর নামে নাশকতা করতে চাইলে তা কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে’।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রেফতার ও তার  মুক্তির দাবীতে মঙ্গলবার রাতে বিএনপি রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডাকে।