প্রধান খবর রাজনীতি

‘ক্ষমতায় থাকার জন্য সরকার দেশকে বিচ্ছিন্ন করেছে’

KHরাজনৈতিক প্রতিবেদক : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, সরকারের আচরণ দেখে মনে হয় দেশে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছে। ক্ষমতায় থাকার জন্য সরকার দেশকে বিচ্ছিন্ন করেছে। দেশের মানুষ শান্তিতে নেই উল্লেখ করে তিনি আবারো গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের দাবি জানান।

তিনি বলেন, জনগণ বর্তমান সরকারের সঙ্গে নেই। বিকেলে গুলশান কার্যালয়ের মূল ফটকের ভেতরে বক্তব্য রাখেন বেগম জিয়া।

তিনি বলেন, ‘আজকে শুধু আমি নই, গোটা দেশটাই অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে।’ কী কারণে তাঁকে বন্দী করা হয়েছে তিনি জানেন না।

আজ সোমবার বিকেলে গুলশানে রাজনৈতিক কার্যালয়ের ভেতরে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। সকাল থেকেই কার্যালয় থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ওই কার্যালয়ে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়। পকেট গেটেও তালা লাগায় পুলিশ। বিকেল পৌনে চারটার দিকে তিনি নিজ কক্ষ থেকে বের হয়ে গাড়িতে ওঠেন। সাড়ে চারটার দিকে তিনি গাড়ি থেকে নেমে সাংবাদিকদের সামনে বক্তব্য দেন।

খালেদা জিয়া বলেন, তাঁরা বলছে বন্দী করেনি। কিন্তু গেটে তালা, বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, যদি তিনি অবরুদ্ধ না হন তাহলে যারা তাঁর সঙ্গে দেখা করতে চায় তাঁদেরকে কেন আসতে দেওয়া হচ্ছে না।

খালেদা জিয়া অভিযোগ করে বলেন, এই সরকার জালেম সরকার। সরকার শুধু দেশকে অবরুদ্ধ করেনি দেশকে কারাগারে পরিণত করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, দেশে অস্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে।

খালেদা জিয়া আরও বলেন, দেশের চিত্র দেখলে মনে হয় যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছে। এজন্য সম্পূর্ণভাবে সরকার দায়ী। বক্তব্যের একপর্যায়ে একুশে টিভির সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, অন্যরা কথা বললে তাঁরা কাউকে সম্প্রচার করতে দিতে চায় না। সরকার একেবারে ‘ডিটেক্টর’ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বক্তব্যের একপর্যায়ে পুলিশকে উদ্দেশ করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘কেন রে ভাই গ্যাস কেন মারা হচ্ছে? আমি তো কথা বলছি। কথাও কী আপনারা বলতে দেবেন না?’ পুলিশ বাহিনীতে সরকারের এজেন্ট ঢুকে গেছে মন্তব্য করে খালেদা জিয়া বলেন, বেশি বাড়াবাড়ি করবেন না। বাড়াবাড়ি বেশিদিন টিকবে না। এর পরিণতি ভোগ করতে হবে। নারীদের ওপর পিপার স্প্রে ও গ্যাস না ছোড়ার জন্য তিনি পুলিশের প্রতি আহ্বান জানান।