জাতীয় বরিশাল বিনোদন ভোলা

ভোলায় গড়ে উঠছে ‘ম্যান মেইড’ সুন্দরবন

 এম. শরীফ হোসাইন, ভোলা: ভোলার উপকূলীয় এলাকায় সুন্দরবনের আদলে ‘ম্যান মেইড’ সুন্দরবন’ গড়ে তোলার প্রকল্প হাতে নিয়েছে বন গবেষণা বিভাগ। এরই মধ্যে সুন্দরবন থেকে আনা বিভিন্ন প্রজাতির গাছের বীজ রোপণ করে পরীক্ষামূলকভাবে পুরোনো বাগানগুলোতে চারা তৈরিতে সফল হয়েছেন তারা। আর এ প্রকল্পকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে নারী কর্মীদের কর্মসংস্থান।
সূত্রে জানা যায়, প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা আর সাগর মোহনায় নতুন চরভূমিকে স্থায়ী করতে ১৯৭২ সালে ভোলার চরফ্যাশনের চর কুকরী-মুকরীসহ জেলার দক্ষিণের উপকূলে তৈরি করা হয় ম্যানগ্রোভ। এরপর ১৯৯০ সালে ম্যান মেইড সুন্দরবনের প্রকল্প হাতে নেয় বন গবেষণা বিভাগ। এরই আওতায় আন্ডার প্লান্টিং প্রক্রিয়ায় বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে সুন্দরবন থেকে কেওড়া, বাইন, গেওয়া, খলসী ও পশুরসহ বিভিন্ন প্রজাতির বীজ সংগ্রহ করে চারা তৈরি করা হচ্ছে। সেই চারাগুলো চর দিগল, নার্সারির খাল, চর শফি, চর জমির, চর ইসলাম ও জাইল্যার খালের ১৬ একর বাগানে রোপণ করা হয়েছে। যার ৭০ ভাগ গাছই লম্বা হয়েছে ৩০ থেকে ৪০ ফুট পর্যন্ত। এদিকে আগে যে চারাগুলো সুন্দরবন থেকে আনা হতো এখন বন বিভাগের বাগান থেকে সেই চারা পাওয়া যাচ্ছে বলে জানান কর্মীরা। আর বীজ সংগ্রহ থেকে শুরু করে সিডবেডে বীজের অংকুরোদগমসহ বাগানের পরিচর্যায় কাজ করছেন একদল নারী কর্মী। তবে নানা প্রতিবন্ধকতা থাকলেও এ প্রকল্প পুরোপুরি সফল হবে বলে আশা প্রকাশ করেন বন বিভাগের কর্মকর্তা।
ভোলা চরফ্যাশন চর কুকরী-মুকরী রেঞ্জ রেঞ্জার সাজেদুল আলম বলেন, ‘অনেকগুলো চারা আছে, যেগুলো হরিণে খেয়ে ফেলে। পুরনো বাগানের মধ্যে যে সমস্ত বাগান এখনো আছে সেখানে যদি গেওয়া, গরান, বাইন, কাকড়া ইত্যাদি লাগানো হয় তাহলে পুরো কুকর-মুকরীকেই সুন্দরবনের আদলে গড়ে তোলা যাবে।’
তিনি আরো বলেন, বর্তমানে কুকরী-মুকরীতে ৩ হাজার হেক্টর সংরক্ষিত ম্যানগ্রোভ বাগান রয়েছে। এছাড়া ম্যান মেইড সুন্দরবনের আওতায় আরো ৪ হাজার হেক্টর জমিতে নতুন বাগান তৈরির কার্যক্রম চলছে।