অপরাধ খুলনা ঝিনাইদাহ রাজনীতি

শৈলকুপায় আওয়ামীলীগের দুই গ্র“পের সংঘর্ষে নিহত ১

 এস,আই মল্লিক, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার শেখরা গোপালপুর গ্রামে আওয়ামী লীগের দুই গ্র“পের সংঘর্ষে একজনকে কুপিয়ে ও হরিনাকুন্ডু উপজেলার খলিসাকুন্ডু গ্রামে প্রতিবেশিরা একজনকে শাস্বরোধ করে হত্যা করেছে। আহত হয়েছে অন্তত ৩০ জন। নিহতরা হল শৈলকুপার শেখরা গোপালপুর গ্রামের তুহিন শেখের ছেলে আব্দুল কুদ্দুস (৪৫) ও হরিনাকন্ডুর খলিসাকুন্ডু গ্রামের মৃত আদালতের ছেলে আব্দুস সাত্তার মন্ডল (৫০)। ঘটনা দুটি ঘটেছে রোববার সকাল ও গতরাতে। শৈলকুপা থানা পুলিশ এ ঘটনায় ৫জনকে আটক করেছে। ঝিনাইদহ সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, জেলার শৈলকুপা উপজেলার নিত্যনন্দপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মফিজুর রহমান এবং পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী  ও আওয়ামীলীগ নেতা ফারুক হোসেন গ্র“পের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গোলযোগ চলে আসছিল। তারই জের ধরে আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শেখরা গোপালপুর গ্রামে মৃত কিয়ামুদ্দিন মোল্যার ফাতেহা (খানা) অণুষ্ঠান উপলক্ষে আয়োজন চলছিল। এ সময় ফারুক গ্র“পের লোকজন হামলা চালালে উভয় গ্র“পের মধ্যে ঢাল, ফালা, রামদা ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আব্দুল কুদ্দুস ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। আহত হয় উভয় পক্ষের আন্তত ৩০ জন। আহতরা হল আরিফুল, ইমদাদুল, নজরুল, জামাল ও কামালসহ অনান্য আহতদেরকে আহতদেরকে শৈলকুপা, ঝিনাইদহ ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে আরিফুলের অবস্থা আশংকাজনক। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ ৪ রাউন্ড ফাকা গুলি বর্ষন করে। পুলিশ এ ঘটনার সাথে জড়িত ৫ জনকে আটক করেছে। এখনও গ্রামটিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ দিকে সহকারী পুলিশ সুপার আরও জানান, জেলার হরিনাকুন্ডু উপজেলার খলিসাকুন্ডু গ্রামের আব্দুস সাত্তার গত রাত ১০টার দিকে প্রতিবেশি রোনক উদ্দিনের বাড়িতে উকি মারে। এ সময় ঐ বাড়ির লোকজন স্ত্তাারকে ধাওয়া করে পাশ্ববর্তি একটি পান বরজে নিয়ে মাফলার দিয়ে গলায় ফাস লাগিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত রণক গা ঢাকা দিয়েছে। উভয় ঘটনায় স্ব-স্ব থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।