আন্তর্জাতিক ধর্ম

ইসলামাবাদের খতিবকে গ্রেপ্তারের আদেশ

 হটনিউজ ডেস্ক: ইসলামাবাদের বহুল আলোচিত লাল মসজিদের খতিব মাওলানা আবদুল আজিজের বিরুদ্ধে অজামিনযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন দেশটির একটি আদালত। সুশীল সমাজের কয়েকজন সদস্যের করা এক মামলার শুনানি নিয়ে জ্যেষ্ঠ দেওয়ানি বিচারক সাকিব জওয়াদ এই পরোয়ানা জারি করেন।
আদালতের এই আদেশের ফলে আবদুল আজিজ যেকোনো সময় গ্রেপ্তার হচ্ছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
সম্প্রতি পাকিস্তানের তালেবানের বিরুদ্ধে সেনা অভিযানকে ‘অনৈসলামিক’ বলে মন্তব্য করেন মাওলানা আবদুল আজিজ। তিনি বলেছেন, তালেবানের ওপর বিমান হামলার প্রতিশোধ নিতেই পেশোয়ারে স্কুলে ১৩৩ শিশুকে হত্যা করা হয়েছে।
এরপর গত সপ্তাহে আজিজের এই বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাতে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা লাল মসজিদের বাইরে জড়ো হন। এ সময় তাঁরা বিভিন্ন স্লোগান দিলে মসজিদের একজন খাদেম বের হয়ে এসে স্লোগান বন্ধ করার জন্য হুমকি দেন। বলেন, আর চিৎকার চেঁচামেচি করা হলে কর্তৃপক্ষ তা বরদাশত করবে না। এসময় দাঙ্গা পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের সরে যেতে বলে।
এরপর সুশীল সমাজের সদস্যরা আবপাড়া পুলিশ স্টেশনে পাকিস্তান পেনাল কোডের ৫০৬(২) ধারা অনুযায়ী জামিনের অযোগ্য ধারায় এফআইআর করেন। পরে এই এফআইআরটি মামলায় রূপান্তরিত হয়।

আজ আদালতে শুনানিকালে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তদন্তের স্বার্থে আবদুল আজিজের গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন করেন। বিচারক সাকিব খতিব আজিজকে গ্রেপ্তার করতে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ নিতে পুলিশকে নির্দেশ দেন।

সুশীল সমাজের একজন কর্মী আহমাদ আলী ডনকে বলেন, মাওলানা আবদুল আজিজ পেশোয়ারের ঘটনায় নিন্দা জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তিনি ওই ঘটনায় নিহত শিশুদের ‘শহীদ’ বলতেও অস্বীকৃতি জানান।

তালেবানবিরোধী অভিযান অনৈসলামিক: লাল মসজিদের খতিব

এদিকে আবপাড়া পুলিশ স্টেশনের কর্মকর্তা আবদুল রেহমান ডনকে বলেন, বিক্ষোভকারীরা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ ও রাস্তা দখল করে মসজিদের প্রশাসনের বিপক্ষে অশালীন ভাষা ব্যবহার করছিলেন। তাই তাঁদের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়। মসজিদের প্রশাসনের অনুরোধে এই এফআইআর করা হয় বলে তিনি জানান। দুই দিন ধরে চলা এই বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে দুই পক্ষই পাল্টাপাল্টি এফআইআর করেছে।

এই বিক্ষোভ কর্মসূচির উদ্যোক্তা মানবাধিকারকর্মী জিবরান নাসির বলেন, ‘পুলিশ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল এই ধারাটি (৫০৬(২)) এফআইআরে সংযুক্ত করবে এবং ২৪ ডিসেম্বরের মধ্যে খতিবকে গ্রেপ্তার করবে। আমরা ২৫ ডিসেম্বর বিক্ষোভ করিনি বরং খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের সঙ্গে বড়দিন উদযাপন করেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘এফআইআরে সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ধারা যদি যুক্ত করা না হয় এবং আজ শুক্রবার বিকেল পাঁচটার মধ্যে খতিবকে গ্রেপ্তার করা না হয়, তাহলে আমরা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করব।’
নাসির বলেন, অজামিনযোগ্য ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির ফলে মাওলানা আবদুল আজিজ চাইলেও গ্রেপ্তারের আগে জামিন নিতে পারবেন না। পুলিশকে তাঁকে গ্রেপ্তার করতেই হবে।