কৃষি ঝিনাইদাহ

কালীগঞ্জে তুলা চাষীদের বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন

Screenshot_2

আতিকুর রহমান টুটুল,ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার বারোবাজার এলাকায় এবছর তুলার দাম কম হওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে বারোবাজার ইউনিটের চাষীবৃন্দ।বুধবার বেলা ১১টার দিকে বারোবাজার সড়কে বিক্ষোভ মিছিল ও মানবন্ধন করা হয়। এসময় চাষীরা সড়কে তুলা ছিটিয়ে ও আগুন দিয়ে তুলার দাম বাড়ানোর দাবি জানান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কালীগঞ্জ উপজেলার বারোবাজার ইউনিটটি যশোর তুলা উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন। এই ইউনিটে ২৩টি গ্রামের প্রায় ৯০০ জন চাষী ২৩০ হেক্টর জমিতে তুলা চাষ করে।গত বছর বীজতুলার প্রতিমণের দাম নির্ধারণ করা হয় ২৫২০ টাকা। আর বলা হয়েছিল আগামীবছর মণপ্রতি আরো ১০০ টাকা করে বাড়ানো হবে। এই আশায় এবার গত বছরের থেকে আরো বেশি জমিতে তুলার চাষ করে এ অঞ্চলের কৃষকরা। কিন্তু গত বছরের থেকে এবছর তুলার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১৯০০ টাকা। যা গত বছরের থেকে ৬২০ টাকা কম।কালীগঞ্জের নরদহি গ্রামের তুলা চাষী আব্দুর গণি জানান, এবার যে দাম নির্ধারণ করা হয়েছে তাতে খরচের টাকাও উঠবে না। আমি ২ বিঘা ১০ কাঠা জমিতে তুলা চাষ করেছি। তিনি জানান, প্রতি বিঘায় খরচ হয় প্রায় ২৩ হাজার টাকা।বারোবাজার ইউনিটের তুলা চাষী সমিতির সভাপতি শরিফুল ইসলাম জানান, আমি এবছর ৩বিঘা জমিতে প্রায় ৭০ হাজার টাকা খরচ করে তুলা চাষ করেছি। প্রতি বিঘায় তুলার ফলন হয় ৮ থেকে ১০ মণ। গতবারের থেকে এবছর দাম কম হওয়ায় আমরা মানসিক দিক থেকে দুর্বল হয়ে পড়েছি।তিনি আরো জানান, অন্যান্য ফসলের থেকে তুলা চাষ অলাভজনক। আর এইভাবে আমাদের আশ্বাস দিয়ে তুলা চাষ করিয়ে ন্যায্য দাম দেয়া যদি না হয় তাহলে আমরা এই ইউনিটের কোনো চাষী তুলা চাষ করবো না বলে জানান তিনি।বারোবাজার তুলা ইউনিটের অফিসার সফিউল আলম টিপু জানান, গত বছর তুলার দাম ছিল মণপ্রতি ২৫২০ টাকা। কৃষকদের গতবছরের থেকে এ বছর মণপ্রতি ১০০ টাকা বেশি হওয়ার আশ্বাস দিয়ে তুলা চাষ করার কথা স্বীকার করে বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে এরকম ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু এবছর তুলার দাম মণপ্রতি ১৯০০ টাকা করা হয়েছে। চাষীদের অভিযোগ পেয়েছি, আমি সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের জানাবো বলে জানান তিনি।