জাতীয় প্রধান খবর

স্লোগানে স্লোগানে রাজাকারের ফাঁসি দাবি

হটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা: স্লোগানে স্লোগানে উত্তাল জনজোয়ারে একটিই দাবি- রাজাকারের ফাঁসি। ভোরে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে যাওয়ার পর স্মৃতিসৌধের মূল ফটক উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। মুহূর্তেই জনজোয়ারে ভেসে যায় চত্বর।   প্রচণ্ড আবেগ আর ভালোবাসায় হাজার হাজার মানুষ ছুটে যায় শহীদ বেদিতে। কে কার আগে শ্রদ্ধা জানাবে, তা নিয়ে কী অপূর্ব প্রতিযোগিতা। পাঁচ মিনিটের মধ্যেই ভরে যায় বেদি।   সকাল ৭টার সেই মাহেন্দ্রক্ষণে তিল পরিমাণ ঠাঁই ছিল না সৌধচত্বরে। স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। ওই স্লোগানে একটিই দাবি উচ্চারিত হয়- রাজাকারদের ফাঁসি চাই এবং তা দ্রুত কার্যকর করতে হবে। ‘আর কোনো দাবি নাই, রাজাকারের ফাঁসি চাই’, ‘নিষিদ্ধ কর নিষিদ্ধ কর, জামায়াত-শিবির নিষিদ্ধ কর’ ‘শহীদের রক্ত বৃথা যেতে দেব না’ প্রভৃতি স্লোগানে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে স্মৃতিসৌধ চত্বর।   ১৬ ডিসেম্বর ভোরেই স্মৃতিসৌধে জড়ো হয়েছিল হাজার হাজার শিশু, কিশোর আর তরুণ। কিন্তু নবীনগর বাসস্ট্যান্ড আর জয় রেস্তোরাঁর পশ্চিম পাশে তাদের আটকে দেয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। প্রধানমন্ত্রী আর রষ্ট্রপতির নিরাপত্তার কারণে দীর্ঘ সময় ধরেই তারা স্মৃতিসৌধের বাইরে অপেক্ষা করছিল। পরে সুযোগ পেয়েই সেখানে ছুটে যায় তারা।   এর আগে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদও রাজাকারদের ফাঁসি কার্যকর করার দাবি জানান।