অপরাধ আন্তর্জাতিক

সিডনির ক্যাফেতে অস্ত্রধারির হাতে জিম্মি ১৩

a1

হটনিউজ২৪বিডি.কম,ডেস্ক: অস্ট্রেলিয়ার সিডনির প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত একটি ক্যাফেতে আগত মানুষদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করেছে বন্দুকধারীরা। এ ঘটনার পরপরই শতাধিক সশস্ত্র পুলিশ শহরটির প্রধান ব্যবসায়িক এলাকা মার্টিন প্লেস ঘিরে রেখেছে। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার।

সোমবার সকালে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এখন ক্যাফেটি ঘিরে রেখেছে। তবে কি দাবিতে বা উদ্দেশ্যে ক্যাফের সবাইকে জিম্মি করা হয়েছে সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

অস্ট্রেলিয়ান টেলিভিশন চ্যানেল সেভেন-এ প্রচারিত ভিডিওতে দেখা গেছে, ‘লিন্ডট্’ নামক ক্যাফেটিতে জিম্মি নাগরিকরা আম্তসমর্পণের ভঙ্গিতে হাত উপরের দিকে উঠিয়ে রেখেছে। ক্যাফেটির জানালার উপরে আরবি লেখাসহ কালো পতাকা লাগানো রয়েছে।

টেলিভিশন চ্যানেলটি জিম্মির সংখ্যা অন্তত ১৩ ও হামলাকারীর সংখ্যা কমপক্ষে একজন বলে জানালেও বার্তা সংস্থা এএফপি এ সংখ্যা যথাক্রমে অন্তত ২০ ও ২ বলে উল্লেখ করেছে।

জিম্মিদের উদ্ধারে শতাধিক সশস্ত্র পুলিশ ক্যাফেটির আশেপাশের এলাকা ঘিরে রেখেছে। মার্টিন প্লেস এলাকার রাজপথগুলোতে নাগরিকদের চলাফেরায় সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশের বিশেষ শাখার কর্মকর্তারা জিম্মিদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আশেপাশের অফিসগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া লোকজনকে ঘরের ভেতর অবস্থান করতে ও জানালা বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

এ ঘটনায় জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবট। এ ঘটনাকে অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয় বলে বর্ণনা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবট। তিনি বলেন, অস্ট্রেলিয়ার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অত্যন্ত দক্ষ ও প্রশিক্ষিত। তারা দ্রুতই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হবেন বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

ওই বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে অ্যাবট জিম্মিদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ ও এ ঘটনায় সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমার কাছে মনে হচ্ছে, এর চেয়ে বেশি হৃদয়বিদারক, বেশি ভয়ানক আর কিছুই হতে পারে না। আমাদের অন্তর তাদের (জিম্মি) কাছে পড়ে রয়েছে।’

এ সময় তিনি দেশবাসীকে স্বাভাবিক থাকারও আহ্বান জানান।