জাতীয় ঝিনাইদাহ

কোটচাঁদপুরে পুলিশের সার্জেন্ট ও হাবিলদারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ

1

এস,আই মল্লিক,হটনিউজ২৪বিডি.কম, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে পুলিশের হাবিলদার ও সার্জেন্ট সড়কে যানবাহনের কাগজপত্র যাচাইয়ের নামে বেপরোয়া চাঁদবাজি করছে। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে কালীগঞ্জ-কোটচাঁদপুর সড়কের কাশিপুর, কাগমারী এবং চৌগাছা সড়কের জাবড়েখাতসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এবং বিকাল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বাস-ট্রাক, মটর সাইকেল, পিকআপসহ বিভিন্ন যানবাহন থামিয়ে কাগজপত্র দেখার নাম করে উৎকোচ হাতিয়ে নিচ্ছে।
কোটচাঁদপুরের পুলিশের সার্জেন্ট কৃষ্ণচন্দ্র ও হাবিলদার হাফিজুর রহমান সড়কে দাঁড়িয়ে বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্তে¡ও বিভিন্ন মামলার ভয়ভীতি দেখিয়ে ২শ’ থেকে দেড় হাজার টাকা পর্যন্ত উৎকোচ হাতাচ্ছে। এ উৎকোচের টাকা নিয়ে অনেকের সাথে সড়কের ওপর প্রকাশ্যে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হচ্ছে। এমনকি অনেকের বৈধ কাগজ-পত্র থাকা সত্তে¡ও তাদের হয়রানি করা হচ্ছে। উপরুক্ত দুই ব্যক্তি কোটচাঁদপুরে বিভিন্ন মাদক, পল্লী ও ব্যবসায়ীদের নিকট গিয়ে গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে সাপ্তাহিক চুক্তিতে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। এসব নিয়ে স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অপরদিকে অবৈধ ইঞ্জিনচালিত নসিমন, করিমন, আলমসাধুসহ অনেক যানবাহন মহাসড়কে চলাচল নিষিদ্ধ থাকলেও তাদের সাথে সাপ্তাহিক ও দৈনিক চুক্তিতে স্থানীয় দু’জন আদায়কারীর মাধ্যমে এ অবৈধ টাকা পুলিশের উপরিমহলে দেওয়ার অজুহাত দেখিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সার্জেন্ট ও হাবিলদার মহাসড়কে যানবাহনের কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করলেও তারা দু’একটি মামলাও রুজু করতে পারেনা।
এছাড়া কোটচাঁদপুরে বিভিন্ন সড়কে রেজিষ্ট্রেশন বিহীন ভাড়ায় চালিত অবৈধ মটর সাইকেল মালিকদের সাথে দৈনিক চুক্তিতে ৫০ টাকা হারে আদায় করা হয়। এ ব্যাপারে পুলিশের উপরিমহলের এক কর্মকর্তা জানান, সার্জেন্ট কৃষ্ণচন্দ্র ও হাবিলদার হাফিজুর রহমান এসব অনিয়ম করছেন বলে তিনি অভিযোগ পেয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তার আশু দৃষ্টি কামনা করেছেন ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরের সচেতনমহল। এ ব্যাপারে সার্জেন্ট কৃষ্ণচন্দ্রের সাথে আলাপ করলে তিনি বলেন, বিভিন্ন মহলের সুপারিশের কারণে অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না।