অর্থ ও বাণিজ্য প্রধান খবর

লিঙ্গ সমতা ক্ষেত্রে এগিয়েছে বাংলাদেশ

  ডেস্ক রিপোর্ট : শিক্ষা, স্বাস্থ্য, নারীর ক্ষমতায়ন ও অর্থনৈতিক কাজে অংশগ্রহণ এই মাপকাঠিতে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের ‘লিঙ্গ বৈষম্য সূচকে’ ধারাবাহিক অগ্রগতি ধরে রেখেছে বাংলাদেশ।

বিশ্বের ১৪২ দেশে নারীদের অবস্থান নিয়ে করা এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান এবার ৬৮তম।  গত বছর ১৩৬ দেশের মধ্যে ৭৫ নম্বরে ছিল বাংলাদেশ।

সূচকে দক্ষিণ এশিয়ায় সব চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। আর পাকিস্তান রয়েছে শেষের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে।

জেনেভাভিত্তিক বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম মঙ্গলবার প্রকাশ করে ‘বিশ্ব লিঙ্গ বৈষম্য প্রতিবেদন ২০১৪’। ফোরামের এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বে ১১১ দেশের গত নয় বছরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষের সমতায় সামান্য অগ্রগতি হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে ২০০৬ সালে যেখানে ১০০ পুরুষের বিপরীতে ৫৬ নারী অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের সুযোগ পেত সেখানে বর্তমানে ৬০ নারী এ সুযোগ পাচ্ছেন।

নারী-পুরুষের এ ব্যবধান সবচেয়ে কম স্বাস্থ্য সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে। বৈষম্য সম্পূর্ণ লোপ করার কাছাকাছি পৌঁছেছে ৩৫টি দেশ । বর্তমানে বিশ্বে ১০০ পুরুষের বিপরীতে স্বাস্থ্য সেবার আওতায় এসেছে ৯৬ নারী ।

এরপর অগ্রগতি শিক্ষায়। ২৫ দেশ এ ক্ষেত্রে বৈষম্য পুরোপুরি বিলোপ করেছে। বিশ্বব্যাপী ১১০ ছেলের বিপরীতে শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে ৯৪ মেয়ে ।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সূচকে বাংলাদেশের অবস্থানের উন্নতির পাশাপাশি স্কোরেও অগ্রগতি হয়েছে। পৃথকভাবে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নারীর অংশ্রহণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ১২৭তম, স্কোর শূন্য দশমিক ৪৭৭। শিক্ষায় অংশগ্রহণে ১১১তম, স্কোর শূন্য দশমিক ৯৪০; স্বাস্থ্যে ১২২ তম, স্কোর শূন্য দশমিক ৯৬৬ এবং রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে অবস্থান ১০ম, স্কোর শূন্য দশমিক ৪০৬।
শিক্ষায় নারীর অংশগ্রহণ গত বছর ১৩৬টি দেশের মধ্যে ১১৫তম অবস্থানে থাকলেও এবার তা এগিয়ে ১১১তম অবস্থানে এসেছে বাংলাদেশ। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষায় নারীর অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে রয়েছে প্রথম অবস্থানে । আর তৃতীয় ধাপের শিক্ষায় নারীর অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে রয়েছে ১১৮তম অবস্থানে।

স্বাস্থ্য সেবার দিক দিয়েও গত বছরের তুলনায় সূচকে অবস্থান দুই ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। স্কোরের দিক থেকেও হয়েছে অগ্রগতি।

এবার অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের দিক থেকে পিছিয়েছে বাংলাদেশ। অর্থনীতিতে ছয় ধাপ পিছিয়ে ১২৭তম এবং রাজনীতিতে তিন ধাপ পিছিয়ে দশম অবস্থানে এসেছে।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত কয়েক বছর ধরে লিঙ্গ বৈষম্য কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করছে বাংলাদেশ।

২০০৭ সালে বিশ্বের ১২৮ দেশের মধ্যে ১০০তম, ২০০৮ সালে ১৩০ দেশের মধ্যে ৯০তম, ২০০৯ সালে ১৩৪ দেশের মধ্যে ৯৩তম, ২০১০ সালে ১৩৪ দেশের মধ্যে ৮২তম, ২০১১ সালে ১৩৫ দেশের মধ্যে ৬৯তম, ২০১২ সালে ১৩৫ দেশের মধ্যে ৮৬তম, ২০১৩ সালে ১৩৬ দেশের মধ্যে ৭৫তম অবস্থানে থাকে বাংলাদেশ।

এ বছর মিলিয়ে টানা ষষ্ঠবারের মতো সূচকে প্রথম অবস্থানে রয়েছে  আইসল্যান্ড। দ্বিতীয় অবস্থানে ফিনল্যান্ড ও তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে নরওয়ে। এরপর রয়েছে সুইডেন (চতুর্থ), ডেনমার্ক (পঞ্চম), নিকারাগুয়া (ষষ্ঠ), রুয়ান্ডা (সপ্তম), আয়ারল্যান্ড (অষ্টম), ফিলিপিন্স (নবম) ও বেলজিয়াম (দশম)।
প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে ভারতের অবস্থান ১০১ থেকে পিছিয়ে ১১৪, শ্রীলঙ্কা ৫৫ থেকে পিছিয়ে ৭৯, ভুটান ৯৩ থেকে পিছিয়ে ১২০, মালদ্বীপ ৯৭ থেকে পিছিয়ে ১০৫ এবং পাকিস্তান ১৩৫ থেকে পিছিয়ে ১৪১তম অবস্থানে রয়েছে। তবে উন্নতি রয়েছে নেপালের উন্নতি হয়েছে। গত বছরের সূচকে ১২১তম অবস্থানে থাকলেও এবার তাদের অবস্থান ১১২তম।

অবস্থানের দিক থেকে মধ্যপ্রাচ্যের সব দেশের পাশাপাশি ইতালি (৬৯), ব্রাজিল (৭১), রাশিয়া (৭৫), চীন (৮৭), ইন্দোনেশিয়া (৯৭), জাপান (১০৪) ও কোরিয়ার (১১৭) চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় রয়েছে ইয়েমেন।