অর্থ ও বাণিজ্য কুমিল্লা চট্টগ্রাম জাতীয়

রপ্তানি হবে ভারতে কয়েল খড়ি

 আখাউড়া(ব্রাহ্মণবাড়িয়া):  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে জ্বালানি কয়েল খড়ি ভারতে রপ্তানি হবে। ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যসহ ৭টি পাহাড়ি রাজ্যে জ্বালানি কয়েল খড়ি রপ্তানি করতে এরইমধ্যে আখাউড়া স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী ও সিএন্ডএফ এজেন্টরা সব ধরনের প্রক্রিয়া শেষ করেছেন। রপ্তানি মূল্যে নির্ধারণ সম্পূর্ণ হলে আগামী মাসেই ভারতে কয়েল খড়ি রপ্তানি শুরু হবে বলে ব্যবসায়ীরা আশা প্রকাশ করছেন। আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে জ্বালানি কয়েল খড়ি রপ্তানি শুরু হলে রপ্তানি বাণিজ্যে নতুন মাত্রা যোগ হবে এবং সেই সাথে দ্বিগুণ হবে রপ্তানি আয়। এমনটি মনে করছেন বন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী ও সিএন্ডএফ এজেন্টরা।

স্থলবন্দর সূত্র জানায়, আজ বুধবার দুপুরে আমদানি-রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান রাজীব ট্রেডার্স তাদের নিজস্ব সিলপ্যাডে কয়েল খড়ির রপ্তানি মূল্য নির্ধারণ করতে একটি আবেদনপত্র জমা দেয় আখাউড়া শুল্ক স্টেশনের সহকারী কমিশনারের বরাবর।

আমদানি-রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান রাজীব ট্রেডার্স ও সিএন্ডএফ ইমাম ব্রাদার্স এর সত্বাধিকারী মো.আব্বাস ভূইয়া হটনিউজ২৪বিডি.কমকে বলেন, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যসহ পাশ্ববর্তী ৭টি পাহাড়ি রাজ্যে বাংলাদেশের জ্বালানি কয়েল খড়ির বিশাল বাজার রয়েছে। স্থানীয় বাজারে প্রতিটন কয়েল খড়ির মূল্য ২০ ডলার। রপ্তানি করা যাবে ৩০ ডলারে। সেদেশের ব্যবসায়ীরা আগ্রহ প্রকাশ করায় অনুমতি পেলে পরীক্ষামূলকভাবে এ বন্দর দিয়ে প্রথমে  ৩০ টন কয়েল খড়ি রপ্তানি করা হবে।

আখাউড়া স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. মনির হোসেন বাবুল হটনিউজ২৪বিডি.কমকে বলেন, বাংলাদেশ থেকে এই প্রথম জ্বালানি পণ্য কয়েল খড়ি রপ্তানি হতে যাচ্ছে। এ বন্দর দিয়ে কয়েল খড়ি রপ্তানি শুরু হলে রপ্তানি আয় দ্বিগুণ বেড়ে যাবে।

আখাউড়া স্থলবন্দরের সহকারী কমিশনার (শুল্ক) নিতিশ বিশ্বাস কয়েল খড়ির রপ্তানি মূল্য নির্ধারণের আবেদনপত্র পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে হটনিউজ২৪বিডি.কমকে বলেন, আবেদনপত্রটি পেয়ে আমরা যাচাইবাছাই শুরু করেছি। সব কিছুই প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।

উল্লেখ্য দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর রপ্তানিকারক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যসহ ৭টি পাহাড়ি রাজ্যে প্রায় অর্ধশতাধিক পণ্য রপ্তানি হয়।