অর্থ ও বাণিজ্য জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর রাজনীতি

প্রতি জেলায় শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলার নির্দেশ- প্রধানমন্ত্রী

  ডেস্ক রিপোর্ট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিল্পের বিকাশে প্রতি জেলায় শিল্পাঞ্চলের জন্য স্থান নির্ধারণ এবং এ লক্ষ্যে জরিপ চালাতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার জন্য এই পরিকল্পনা স্থানীয় সুযোগ-সুবিধার ব্যবহার করে ব্যবসা করতে বিনিয়োগকারীদের উৎসাহিত করবে।’  রোববার মতিঝিলে শিল্প মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে মন্ত্রণালয়টির কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ভাষণে এ নির্দেশ দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শিল্পপ্রবৃদ্ধির জন্য বেসরকারি খাতের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হলেও এ ক্ষেত্রে সরকারি কর্মকর্তাদের মনে রাখতে হবে, বিশেষ করে শিল্পনীতির যথাযথ বাস্তবায়ন ও অন্যান্য বিষয় মনিটরিংয়ে সরকারের বিরাট ভূমিকা রয়েছে।’
প্রধানমন্ত্রী পরিবেশবান্ধব শিল্প গড়তে কর্মকর্তাদের সতর্কতার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সব সময় পরিবেশবাদীদের হইচই শুনতে হবে, এমন কোনো কথা নয়।  তিনি বলেন, ‘যেখানে-সেখানে শিল্পকারখানা স্থাপনের অনুমতি দেওয়া যাবে না। তবে সুচিন্তিত পরিকল্পনার মাধ্যমে মূল্যবান জমি ও পরিবেশ ধ্বংস না করে শিল্পের জন্য নির্ধারিত স্থান গড়ে তুলতে হবে। বাংলাদেশ তার কৃষি, শিল্প ও জনশক্তির ভিত্তিতে একটি সুখী ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে, এ আস্থা ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এসব সম্পদ পরিকল্পিতভাবে কাজে লাগাতে পারলে কেউ আমাদের আটকাতে পারবে না।’ প্রধানমন্ত্রী শিল্পনীতিতে সংগতি বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, ‘অতীতে এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন সরকার বিভিন্ন নীতি অনুসরণ করেছে। আমাদের বেসরকারি উদ্যোক্তা প্রয়োজন। তবে সরকারি খাত না থাকলে নিয়ন্ত্রণ ও মান কোনোটাই থাকে না।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে সরকারি খাতের শিল্পকারখানা পুনর্গঠনের পাশাপাশি বেসরকারি খাতের বিকাশেও খুবই উদার নীতি নেওয়া হয়েছে।’

দেশের সাতটি অঞ্চলে বিশেষ শিল্পাঞ্চল স্থাপনে বর্তমান সরকারের পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এ ছাড়াও স্থানীয় ও বিদেশি বিনিয়োগের উপযোগী আরো স্থান খুঁজে দেখা হচ্ছে।’

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সরকার আর কোনো পাটকল বিক্রি করবে না। বরং এসব স্থাপনাকে দেশি ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য শিল্প প্লটে রূপান্তর করা হবে।’ তিনি সারের উৎপাদন শুরু করতে সাফকোতে গ্যাস সরবরাহের নির্দেশ দেন।

দেশের উন্নয়নে শিল্প প্রবৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ কৃষিভিত্তিক দেশ, আমরা কৃষিকে অবহেলা করতে পারি না। তবে কৃষি খাতের শিল্পায়ন ছাড়া অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব নয়।’

তিনি বলেন, ‘এখন হচ্ছে শিল্প উন্নয়নের সময়। বিদেশি বিনিয়োগকারী বাংলাদেশে শিল্প স্থাপনে আগ্রহী। একই সঙ্গে সরকারও বেসরকারি খাতের পাশাপাশি সরকারি খাত ও সমবায়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেছে।

অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মাদ মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ বক্তৃতা করেন।