স্বাস্থ্য

সুস্বাস্থ্যের জন্য সকালবেলা যে ৫ টি কাজ করা অত্যন্ত জরুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা, ১৩ মার্চ : আমরা প্রত্যেকেই জীবনকে নিজেদের পছন্দের রুটিন অনুযায়ী সাজিয়ে গুছিয়ে নিয়ে থাকি। যে সব কাজগুলো আমাদের করতে বেশি ভালো লাগে সে কাজগুলোই সাধারণত করে থাকি। কিন্তু এইসকল কাজের মধ্য কোনগুলো আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো এবং কোনগুলো খারাপ তা আমরা কতোটা জানি? আমাদের নিজের অজান্তেই আমরা স্বাস্থ্যের জন্য অনেক খারাপ কাজ করে থাকি। এমনকি স্বাস্থ্য সচেতন মানুষেরাও অনেক সময় অনেক ভুল করে থাকেন। তাই সুস্বাস্থ্যের জন্য কোন কোন কাজগুলো করা অনেক জরুরী তা আমাদের জানতে হবে।

দিনের শুরুটা আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি সময়। সকালবেলার অনেক কাজ আমাদের দেহকে প্রস্তুত করে পুরোদিনের ঝড়-ঝাপটার জন্য। এবং দেহকে সুস্থ রাখার জন্য সাহায্য করে। এমন অনেক কাজ আছে যা শুধুমাত্র দিনের শুরুতে করলেই আমরা হতে পারি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী।

ভোরে একটি নির্দিষ্ট সময় প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠুন

ভোরের আলো এবং বাতাস দুটোই স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ভোরের আলো আমাদের দেহে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি পূরণ করে এবং ভোরের দৃশ্য চোখের দৃষ্টি উন্নত করে। ভোরের তাজা বাতাস আমাদের শ্বাসপ্রশ্বাসের সাথে দেহের ভেতরে প্রবেশ করে ফুসফুসকে পরিষ্কার করে। একটি নির্দিষ্ট সময়ে প্রতিদিন উঠার অভ্যাস আমাদের ঘুমের সময়টাকে নির্দিষ্ট করে এবং অনিদ্রা জনিত সমস্যা দূর করে।তাই সুস্বাস্থ্যের জন্য ভোরে একটি নির্দিষ্ট সময় প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস করুন।

খালি পেটে লেবু গরম পানি পান করুন

সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে কুসুম গরম পানিতে ১ টুকরো লেবু চিপে পান করুন। এতে আমাদের পরিপাকতন্ত্র ভালো কাজ করে এবং হজমজনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়া সকালে লেবু গরম পানি দেহের মেদ বিশেষ করে পেটের মেদ কমতেও সহায়তা করে দেহকে সুস্থ রাখে।

১০-১৫ মিনিট ব্যায়াম করুন

সকালের তাজা হাওয়া এবং আলো দুটোই দেহে প্রবেশ করার সব চাইতে ভালো উপায় হচ্ছে ব্যায়াম করা। শারীরিক ব্যায়াম কিংবা যোগ ব্যায়াম করে নিন। শারীরিক ব্যায়াম, দৌড়নো কিংবা জগিং করলে দেহ থাকে ফিট। আবার যোগ ব্যায়াম কিংবা মেডিটেশন করলে মানসিক প্রশান্তি আসে যা মানসিক চাপ মুক্ত করে আমাদের মস্তিষ্ককে রাখে সচল এবং সুবল।

ভালো একটি নাস্তা উপহার দিন নিজেকে

সকালের নাস্তা পুরো দিনের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। মস্তিষ্ককে সচল রাখে এবং দুপুরের খাবারের আগ পর্যন্ত আপনার দেহে এনার্জি সরবরাহ করে এই ধরণের খাবার রাখুন নাস্তায়। ডিম, বাদাম, ফলমূল এবং ১ কাপ চা/কফি দিয়ে নাস্তা সেরে নিন। এতে দেহের অনেক ধরণের ভিটামিন এবং মিনারেলের ঘাটতি পূরণ হবে। ওজনও ঠিক থাকবে। সুতরাং স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

নিজেকে খুশি করুন

সকালে উঠে এমন কিছু কাজ করুন যা আপনাকে খুশি করে তোলে। প্রাণ খোলা হাসি আনতে পারে আপনার মুখে। কাজের জন্য তৈরি হতে হতে কিছুক্ষণ গান শুনুন কিংবা খেয়ে নিন একটুকরো ডার্ক চকলেট। কিংবা আপনজনের সাথে কথা বলুন ৫-১০ মিনিট। অনেক সময় প্রিয়জনের স্পর্শ আমাদের দেহের হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখে এবং দেহের সুস্থতায় সহায়তা করে। তাই সকালে আলিঙ্গন করুন প্রিয় মানুষটিকে।