প্রযুক্তি

মজিলা ঘোষণা করল তাদের নতুন প্রজেক্ট ‘mozjpeg’

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদক, ৬ মার্চ (হটনিউজ২৪বিডি.কম) : বর্তমানে ইন্টারনেট জগতের প্রায় অধিকাংশ অংশ জুড়েই রয়েছে ছবি। আর এই ছবির পরিমাণ এতই বৃদ্ধি পেয়েছে যে একটি ওয়েবপেইজ লোড করতে গেলে তার প্রধান অংশই খরচ হয় এই ছবিগুলো লোড করতেই। তবে এই ছবির মান নিয়ে রয়েছে নানা মন্তব্য। ইন্টারনেটে সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত ছবির ফরম্যাট হল ‘jpeg’ ফরম্যাট। এই ফরম্যাট এতই ব্যবহৃত হয় যে মাইক্রোসফট, গুগলের মতন প্রতিষ্ঠানের নানা প্রচেষ্টাতেও এর ব্যবহারের পরিমাণ হ্রাস পায়নি। দাবি করা হয়, ‘jpeg’ হল একমাত্র ইমেজ ফরম্যাট যা কিনা শুধু ওয়েবপেইজ সাপোর্ট পেয়েছে তা নয় বরং বিশ্বের প্রায় সকল সফটওয়্যারেও এর সাপোর্ট পাওয়া যায়। আর একারনেই মজিলা মনে করে এর সমাধান হিসেবে এর প্রতিস্থাপন খুঁজে বের না করে কিভাবে করে এই বহুল ব্যবহৃত ফরম্যাটের উন্নতি সাধন করা যায় তা বের করা উচিত। আর সেই উদ্দেশ্যেই মজিলা ঘোষণা করল তাদের নতুন প্রজেক্ট ‘mozjpeg’।

‘jpeg’ ফরম্যাট ব্যবহার করা শুরু হয়েছে তার প্রায় ২০ বছরের অধিক সময় পাড় হয়ে গেছে। এত বছর পার হয়ে গেলেও মজিলা মনে করে এর এনকোডার নিয়ে তেমন ভাবে কাজ করা হয়নি। যে কারনে এর এনকোডারগুলো তেমন কার্যকর হয়ে উঠেনি। ফলে অনেকেই এটিকে প্রতিস্থাপন করার কথা বলে চলছে অনেক বছর ধরেই। কিন্তু প্রায় ২০ বছর ধরে ব্যবহার করা একটি ফরম্যাট যা কিনা ওয়েব এবং সফটওয়্যার সকল দিক থেকেই সাপোর্ট পাচ্ছে বর্তমানে তাকে সরানো খুব সহজ নয়। এছাড়া এক্ষেত্রে নতুন কোন ফরম্যাট চালু করলে তা বাস্তবায়ন করতেই লেগে যাবে কয়েক বছর। যেকারনে মাইক্রোসফটের JPEG XR অথবা JPEG 2000 এবং গুগলের ওয়েবএম প্রযুক্তি তেমন সাড়া ফেলতে পারেনি।

তাই মজিলা দ্বিতীয় প্রশ্ন নিয়ে উদ্ভূত হয়। JPEG এনকোডারগুলো কি আসলেই তার সর্বোচ্চ উন্নতি লাভ করেছে কিনা। যখন এ নিয়ে মজিলা আলোচনা শুরু করে উত্তর আসে না এটি এখনও আরও উন্নত করা সম্ভব। আর একারনেই মজিলা তাদের এই নতুন প্রজেক্ট শুরু করে। যা কিনা এই এনকোডারকে আরও উন্নত করতে সাহায্য করবে।

এর ফলে কোন ছবির মানে তারতম্য না ঘটিয়েই তার আকার পূর্বের তুলনায় আরও ছোট হয়ে আসবে। উদাহরণস্বরূপ, একটি JPEG ফাইলের সাইজ আকারে ১০% কমে আসবে আর যে সকল ছবিকে পিএনজি থেকে জেপিইজি ফরম্যাটে একবার কনভার্ট করা হয়েছে তার আকার কমানো যাবে ২-৬ শতাংশ। তবে এটি সত্যিকার অর্থে একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর কি উপকারে আসবে তা জানতে চাইলে এর উত্তর হল, এর ফলে ওয়েবপেইজগুলো আরও দ্রুত লোড করা সম্ভব হবে, এমনকি অ্যাপে ছবি লোডও হবে দ্রুত। ফলে সামগ্রিকভাবে একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ইন্টারনেট অভিজ্ঞতা আরও উন্নত এবং সহজ হবে। যদি আপনি একজন ডেভেলপার হয়ে থাকেন এবং এ নিয়ে আরও বিস্তারিত জানতে অথবা কাজ করতে চান তবে মজিলার অফিসিয়াল ব্লগ দেখুন অথবা প্রজেক্টি জিটহাব এ দেখুন।