আন্তর্জাতিক

রাশিয়াকে জি-৮ থেকে বহিষ্কারের লক্ষ্যে তত্পর হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ৪ মার্চ (হটনিউজ২৪বিডি.কম) : ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপের জের ধরে রাশিয়াকে জি-৮ থেকে বহিষ্কারের লক্ষ্যে তত্পর হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। একই কারণে রুশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে সামরিক মহড়াসহ সব ধরনের কর্মকাণ্ড স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছে পেন্টাগন।

মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে রাশিয়াকে বিশ্বের শিল্পোন্নত আটটি দেশের সংগঠন থেকে বহিষ্কারে ওবামা প্রশাসন কাজ শুরু করেছে।

এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সম্পদ জব্দ, বাণিজ্য আলোচনা স্থগিত ও রুশ কর্মকর্তাদের ভিসার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করছে ওয়াশিংটন।

ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপকে রাশিয়ার দ্বিতীয় আফগানিস্তান বলে চিহ্নিত করছে ওয়াশিংটন।

মস্কো ‘ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন’ করায় বিশ্বের শিল্পোন্নত সাতটি দেশ নিন্দা জানিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র আগেই হুঁশিয়ার করেছে, ইউক্রেনে সেনা পাঠানো হলে এ জন্য মস্কোকে মাশুল দিতে হবে। গত রোববার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, ইউক্রেনে রুশদের সামরিক উপস্থিতি অব্যাহত রাখলে জি-৮ সম্মেলনে যাবে না যুক্তরাষ্ট্র। এমনকি সংস্থাটি থেকে মস্কোকে বহিষ্কারও করা হতে পারে।

তবে এই হুমকিকে নাকচ করে মস্কো বলেছে, রাশিয়াকে বাদ দেওয়া হলে জি-৮ নিজেই অর্থহীন হয়ে পড়বে।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর গতকাল সোমবার বলেছে, তারা রুশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে সামরিক মহড়াসহ সব ধরনের কর্মকাণ্ড সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে।
রাশিয়ার ওপর চাপ তৈরি করতে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন কূটনৈতিক তত্পরতা বাড়িয়েছে। রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী গত শনিবার ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপের দখল নিয়েছে। ক্রিমিয়া উপদ্বীপে অবস্থানরত দেশটির সেনাদের আত্মসমর্পণ করতে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে রাশিয়া।

ইউক্রেন তার সেনাবাহিনীকে আগ্রাসন মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছে। একই সঙ্গে আরও আন্তর্জাতিক সহায়তার আবেদন জানিয়েছে দেশটি।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেছেন, তাঁরা ইউক্রেনে রুশ নাগরিক ও মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করছেন। সেখানকার ‘রাজনৈতিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত’ রুশ সেনাদের অবস্থান জরুরি।