জাতীয়

পুনরায় চালু হচ্ছে বিমানের অভ্যন্তরীণ পাঁচ রুট

ঢাকা, ১ মার্চ (হটনিউজ২৪বিডি.কম) : আগামী মাসে বিমানের বন্ধ থাকা পাঁচটি অভ্যন্তরীণ রুট পুনরায় চালু হতে যাচ্ছে। এ ছাড়া পরিত্যক্ত বিমানবন্দরগুলো সংস্কার করে সেগুলোও পর্যায়ক্রমে চালুর উদ্যোগ নেবে সরকার। এ লক্ষ্যে শিগগিরই বিমানের বহরে যুক্ত হচ্ছে অভ্যন্তরীণ রুটের উপযোগী দুটি টার্বো-প্রোপেলার উড়োজাহাজ। উড়োজাহাজ দুটি ভাড়ায় নেওয়ার জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। সম্ভাব্য পাঁচ রুট হচ্ছে ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-সৈয়দপুর, ঢাকা-কক্সবাজার, ঢাকা-যশোর ও ঢাকা-বরিশাল। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সম্প্রতি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটগুলো পুনরায় চালু করতে দুটি টার্বো-প্রোপেলার উড়োজাহাজ সংগ্রহের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়েছে। শিগগিরই উড়োজাহাজ দুটি বিমানের বহরে যুক্ত হবে। এর পরই অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে সীমিত আকারে ফ্লাইট শুরু করবে বিমান। পর্যায়ক্রমে তা বাড়ানো হবে। জানা যায়, বন্ধ অভ্যন্তরীণ রুটগুলো চালুর লক্ষ্যে জ্বালানিসাশ্রয়ী ছোট আকারের দুটি উড়োজাহাজ সংগ্রহে তিন দফা দরপত্র ডেকেও সাড়া পায়নি বিমান। সর্বশেষ গত ২৪ ডিসেম্বর চতুর্থ দফায় দরপত্র আহ্বান করা হয়। এতে ৪৫ থেকে ৮০ আসনের দুটি উড়োজাহাজ পাঁচ বছর মেয়াদে ড্রাই লিজে নেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়। শর্ত হিসেবে বলা হয়, উড়োজাহাজ দুটির বয়স অবশ্যই ১২ বছরের নিচে হতে হবে। এ ছাড়া উড়োজাহাজের নকশা, ইঞ্জিন ও প্রোপেলার যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল এভিয়েশন অথরিটির (এফএএ) অথবা ইউরোপিয়ান এভিয়েশন সেফটি এজেন্সির (ইএএসএ) সার্টিফায়েড হতে হবে। গত ১৬ জানুয়ারি দরপত্র জমা দেওয়ার সময় শেষ হয়েছে। দরপত্রে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কেভিন জন স্টিল সম্প্রতি এ প্রসঙ্গে বলেছেন , দুঃখজনক হলেও সত্য, পর পর তিনবার দরপত্র ইস্যু করেও অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচল উপযোগী দুটি টার্বো-প্রোপেলার উড়োজাহাজ সংগ্রহ করা যায়নি। এ কারণে পুনরায় দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। তিনি বলেন, আগের দরগুলোয় যেসব বিডার অংশ নিয়েছিল, তারা বিমানের চাহিদা অনুযায়ী উড়োজাহাজ দিতে সমর্থ ছিল না। ফলে কাঙ্ক্ষিত সময়ে অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইট শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে আশা করা যাচ্ছে, এপ্রিল নাগাদ অভ্যন্তরীণ সব রুটে ফ্লাইট চালু করা যাবে। এদিকে বগুড়া, ঠাকুরগাঁও, লালমনিরহাট ও শমশেরনগর বিমানবন্দর পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। পর্যায়ক্রমে এগুলো চালুরও পরিকল্পনা করছে সরকার। দীর্ঘদিন পরিত্যক্ত থাকার পর সম্প্রতি ঈশ্বরদী বিমানবন্দর চালু হয়েছে। রাশেদ খান মেনন এ প্রসঙ্গে বলেন, চালু থাকা বিমানবন্দরগুলোর পাশাপাশি পরিত্যক্তগুলোয়ও ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। রানওয়ে মেরামতের পর পর্যায়ক্রমে সেগুলো চালু করা হবে। এতে দেশের আকাশ যোগাযোগ বাড়ার পাশাপাশি পর্যটন খাতও বিকশিত হবে। উল্লেখ্য, উড়োজাহাজ সংকট ও ক্রমাগত লোকসানের কারণে ২০০২ সাল থেকে ২০০৭ সালের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে  অভ্যন্তরীণ সাতটি রুটের মধ্যে চারটিই বন্ধ করে দেয় বিমান। বন্ধ করে দেওয়ার আগ পর্যন্ত ঢাকা-যশোর রুটে সপ্তাহে পাঁচটি, ঢাকা-বরিশাল রুটে দুটি ও ঢাকা-রাজশাহী-সৈয়দপুর রুটে প্রতিদিন একটি করে ফ্লাইট চালু ছিল।  ২০১২ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা-কক্সবাজার রুটের ফ্লাইটও বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে ঢাকা থেকে আন্তর্জাতিক রুটের সংযোগ ফ্লাইট হিসেবে চট্টগ্রাম ও সিলেটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে বিমান। অন্যদিকে ঢাকা-রাজশাহী-সৈয়দপুর ও ঢাকা-যশোরসহ আরো দুটি রুটে সীমিত আকারে ফ্লাইট পরিচালনা করছে বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউনাইটেড এয়ার।