বিনোদন

রণবীর-ক্যাটরিনার “ব্রেকআপ”, বিপাকে পুরো বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি

বিনোদন প্রতিবেদক, ২০ ফেব্রুয়ারি (হটনিউজ২৪বিডি.কম) : দীপিকার সঙ্গে রনবীরের কাজ করা নিয়ে শুরুতেই বিরক্ত ছিলেন ক্যাটরিনা। এই একই কারণে নাকি ভাঙ্গন চলছে রণবীর-ক্যাটরিনার। রণবীরের এক বন্ধুর কাছ থেকে জানা গেছে, ক্যাটরিনার সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার কারণে ভ্যালেনটাইন্স ডে-র সন্ধ্যায় প্রেমিকার পরিবর্তে বন্ধুদের সঙ্গে মদ্যপান আর পার্টি করে কাটিয়েছেন রণবীর। তবে তাদের এই বিচ্ছিন্নতা শুধু তাদেরকেই ভোগাচ্ছে না, বিপাকে ফেলেছে পুরো বলিউডকে।

রণবীর-ক্যাটরিনার এই বিরহের সময়ে বলিউডের কোটি টাকার লগ্নি এখন অনিশ্চিত ভবিষ্যতের মুখে। যারা এই দু’জনকে নিয়ে ছবি বানাচ্ছিলেন, তাদের অনেকেই এখন অথৈ জলে। তাদের মধ্যে অবশ্যই প্রথমে আসবে পরিচালক অনুরাগ বসুর নাম। এই দু’জনকে নিয়ে তিনি ‘জাগ্গা জাসুস’ নামের ছবিটি তৈরি করেছেন।

তার শ্যুটিং নিয়ে এখন ঘোর সংকট দেখা দিয়েছে। আর ১০০ কোটির এই রোম্যান্টিক কমেডির শ্যুটিং নিয়ে যদি সমস্যা হয়, তাহলে পরিচালক যে সমস্যায় পড়বেন, তা বলার অপেক্ষা নেই।

‘শ্যুটিং যখন শুরু হয়েছিল, রণবীর এবং ক্যাটরিনার মধ্যে সম্পর্ক ছিল মধুর। কিন্তু এখন তাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়েছে। তারা একে অপরের সঙ্গে কথা পর্যন্ত বলছেন না। সত্যি বলতে, দু’জনে নিজের কাজের মধ্যে এমনই অস্বস্তি নিয়ে আসছেন যে, একদিন অনুরাগকে আধ ঘণ্টায় শ্যুটিং বন্ধ করে দিতে হয়েছে। আর একদিন শ্যুটিংয়ের মাঝে রণবীর ক্যাটরিনার সঙ্গে সময় কাটাবেন বলে তার ভ্যানিটি ভ্যানে গেলেন। কিন্তু আধ ঘণ্টা যেতে না যেতেই সেখান থেকে বেরিয়ে এলেন, এবং চলেও গেলেন,’ বলে জানিয়েছেন শ্যুটিং ইউনিট-এর সঙ্গে যুক্ত একজন।

শুধু এই একটি ছবিই নয়, যত দূর জানা যাচ্ছে অন্তত তিনটি এমন ছবির পরিকল্পনা ছিল, যেখানে রণবীর আর ক্যাটরিনার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করার কথা হচ্ছিল। কিন্তু সেগুলোর প্রযোজকরা নায়ক-নায়িকার সম্পর্কের ভাঙনের কারণে এখন আর সেই সব প্রোজেক্ট নিয়ে এগোতে পারছেন না। তিনটি ছবির একটির প্রযোজক নাকি করন জোহর। কিছুদিন আগে কিরণ রাওয়ের বাড়িতে রণবীর এবং ক্যাটরিনা যান একটি মিটিং-এর উদ্দেশ্যে। কিন্তু প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সেই মিটিং-ও আধ ঘণ্টার বেশি এগোয়নি। আন্দাজ করাই যায়, কিরণও নিশ্চয়ই এমনই কোনও ছবির কাজের কথা বলতেই মিটিংয়ে বসেছিলেন দু’জনের সঙ্গে। কিন্তু সে প্রোজেক্টও এখন আর এগুনোর পথ পাচ্ছেনা। তবে ইন্ডাস্ট্রির কেউ-ই এই নিয়ে বিশেষ কথা বলতে রাজি নন। যে কোনও কাউকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে, সকলেরই মুখে এক উত্তর- ‘ওদের ব্যক্তিগত জীবন’!