অর্থ ও বাণিজ্য কৃষি ঢাকা ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে দিশেহারা চাষিরা সেচমূল্য নিয়ে

 জেলা প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ, ১ ফেব্রুয়ারি :  জেলার বিভিন্ন উপজেলায় চলতি বোরো মৌসুমে সেচ পাম্পের ম্যানেজার ও মালিকরা অতিরিক্ত সেচমূল্য নেওয়ায় চাষিরা দিশেহারা। জানা যায়, সেচ কমিটির সভা না হওয়ায় চলতি মৌসুমের সেচ খরচ নির্ধারণ হয়নি। ফলে চাষিদের কাছ থেকে ইচ্ছেমতো অতিরিক্ত সেচমূল্য আদায় করছে সংশ্লিষ্টরা। ঈশ্বরগঞ্জে উপজেলায় দেখা যায়, কৃষকরা লোকসানের আশঙ্কায় অনেকে জমি চাষ করার পরেও চারা রোপন করতে পারছেন না। আবার অনেক চাষি অতিরিক্ত সেচমূল্য দিয়ে বাধ্য হয়েই সেচ কাজ করছেন। কেউ কেউ অগ্রিম টাকা দিয়ে টিকেটের মাধ্যমে জমিতে সেচ দিয়ে ধানের চারা রোপণ করছেন। এখন পর্যন্ত সেচের মূল্য নির্ধারণে উপজেলা সেচ কমিটির সভা না হওয়ায় বোরো আবাদ নিয়ে চাষিরা মহা দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। উপজেলার দড়িপাচাশি গ্রামের মোসলেম উদ্দিন জানান, কাঠা প্রতি পানির দাম ধরা হয়েছে সাড়ে ৫’শ টাকা। দুশ্চিন্তায় আছি, এতো টাকা খরচা করে ধানের দাম উঠবে কী না। স্থানীয় উপজেলা কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের সেচ বিভাগের উর্ধ্বতন উপ-সহকারি প্রকৌশলি মো. আজাদ হোসেন জানান, গত বোরো মৌসুমে সেচ কমিটি ডিজেল চালিত ৪০০ টাকা ও বিদ্যুৎ চালিত ৩৫০ টাকা কাঠা প্রতি সেচ খরচ নির্ধারণ করেন। তবে গত ডিসেম্বর থেকে বোরো মৌসুম শুরু হলেও হরতাল অবরোধের কারণে এখনো সেচ কমিটির সভা না হওয়ায় চলতি মৌসুমের সেচ খরচ নির্ধারণ হয়নি। তবে দু’এক সপ্তাহের মধ্যেই সেচের মূল্য নির্ধারণ করা হবে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা নাঈমা সুলতানা জানান, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের তদারকির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। কোন পাম্প মালিক বা ম্যানেজার সেচ কাজে অতিরিক্ত টাকা নেয়ার চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দেন তিনি।